অবৈধভাবে ভারত ছেড়ে পালাচ্ছে বাংলাদেশিরা

ঢাকা, তাপস রায়: একদিকে কেন্দ্রীয় সরকার দেশ থেকে যখন বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে দেওয়ার কাজ শুরু করেছে অন্যদিকে, সীমান্তে চোরাচালান বৃদ্ধির আশঙ্কা করছে বিএসএফ। বর্তমানে সিএএ-র উপর ক্ষোভ এবং এনআরসির ভয়ে সারা ভারতজুড়ে বিক্ষোভের সূত্রপাত হয়েছে।

দেশে যেসব বাংলাদেশিরা রয়েছেন তাদের মধ্যে একটা ভয় কাজ করছে। আর সেটা হল যদি দেশে সিএএ ও এনআরসি চালু হয় তাহলে কি হবে? সেই ভয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে ভারতে বসবাসরত বাংলাদেশিরা দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার এক বহুল প্রচারিত সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে বিষয়টি। সেখানে বলা হয়েছে, ভারতে বসবাসকারী কিছু বাংলাদেশি পাচারকারীদের সহায়তায় দেশ ছেড়ে পালাতে শুরু করেছে। পালিয়ে যাওয়া লোকেরা আশঙ্কা করছে, তারা যদি না চলে যায় তাহলে ভারত সরকার তাদের আসাম এবং দেশের অন্যান্য অংশে অবস্থিত ডিটেনশন সেন্টারে পাঠিয়ে দেবে।

উল্লেখ্য, দু’দেশে ৪,০০০ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে। বেশ কয়েকদিন যাবত সীমান্ত এলাকায় বাংলাদেশিদের বেশিরভাগ ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ওই সংবাদ মাধ্যম উল্লেখ করেছে যে, অনেক লোক অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে সীমান্ত অতিক্রম করছে। কিছু চোরাচালানকারীদের মতামতও তারা নিয়েছে।

চোরাচালানকারিরা বলেছে, গত কয়েকমাসে সীমান্ত বাহিনী কমপক্ষে ৫০০ জনকে গ্রেফতার করেছে। প্রতি রাতে প্রায় ৪০-৬০ জনকে নদী অতিক্রম করাচ্ছে তারা। এটা একেবারে স্পষ্ট যে ভারতের শাসকদল আর কোনও বাংলাদেশি চায় না তাদের দেশে। বাংলাদেশি বলেন, “আমরা কী করতে পারি? আমাদের মর্যাদা ও সম্মান নিয়ে বাঁচতে হবে, তাই আমরা ফিরে এসেছি।”