গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন যশ সহ এক ঝাঁক টলি তারকা, চমক বিজেপির

0

কলকাতা: একুশের নির্বাচনে শাসক-বিরোধী দুই দলেরই চোখ টলি পাড়ায়। আরা সেই পাড়ার তারকাই ‘ট্রাম্প কার্ড’। সেই থিওরিতেই, বুধবার বিকেলে দক্ষিণ কলকাতার বিলাসবহুল হোটেলে এক ঝাঁক টলি তারকা বিজেপিতে যোগ দিলেন। তার মধ্যে বড় নাম যশ দাশগুপ্ত। এদিন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়ের হাত থেকে বিজেপির পতাকা তুলে নেন তিনি। এছাড়াও পাপিয়া অধিকারী, সৌমিলি বিশ্বাস, শর্মিলা ভট্টাচার্য-সহ বেশ কিছু টলি তারকা বিজেপিতে নাম লেখান। তবে যশের যোগদানকে বিজেপি ‘চমক’ বলেই বর্ণনা করেছে।

বিজেপি-তে যোগ দিয়ে যশ জানিয়েছেন, তিনি আচমকা এই সিদ্ধান্ত নেননি। তাঁর কথায়, ‘‘হুট করে এই সিদ্ধান্ত নিইনি। আমার মূল লক্ষ্য তরুণ প্রজন্ম। কারণ, আমার নিজেরও বয়স খুব একটা বেশি নয়। আমি জানি, বিজেপি সবসময় তারুণ্যের উপর ভরসা রেখেছে।’’ এদিন যশ আরও বলেন, “রাজনীতি মানেই খারাপ কিছু নয়। আমার মনে হয়, পরিবর্তন শুধু চাইলেই হয় না, মুখে পরিবর্তনের কথা বললেই হয় না। বৃহত্তর স্বার্থে ময়দানে নেমে কাজ করতে হয়। কোনও পদের কথা চিন্তা করে যোগ দিইনি। বিজেপির সঙ্গে আমার আদর্শ মেলে। তাই এই দলের হয়ে প্রাণ খুলে কাজ করতে পারব। যুবসমাজের সঙ্গে কাজ করতে চাই আমি।”

উল্লেখ্য ভোটের আগে শাসক-বিরোধী দুই শিবিরের মধ্যে টলি তারকা নিয়ে দড়ি টানাটানি খেলা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই কৌশানী মুখোপাধ্যায়, সৌরভ দাস, রণিতা দাস, সৌপ্তিক চক্রবর্তী, শ্রীতমা ভট্টাচার্য, দীপঙ্কর দে সহ বহু অভিনেতা অভিনেত্রী যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। মিমি, নুসরাত, দেব আগে থেকেই তৃণমূলের সক্রিয় সদস্য।কিন্তু সম্প্রতি নুসরাত ও যশ’কে নিয়ে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছিল। এরই মধ্যে যশ বিজেপিতে যোগ দেন। আর নুসরাত তৃণমূলেই। ‌শোনা যাচ্ছে ‘দিদির দূত’ অভিযানে তৃণমূলের বড় মুখ মিমি-নুসরাত’ই। যদিও নুসরাত যশকে নিয়ে জল্পনাকে নস্যাৎ করেছেন।

অন্যদিকে রুদ্রনীল সিপিএম ছেড়ে তৃণমূল হয়ে সম্প্রতি বিজেপি তে যোগ দিয়েছেন রূদ্রনীল ঘোষ। যোগ দিয়েছেন ছোটপর্দার পরিচিত মুখ কৌশিক রায়ও। যশের দাবি, বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার বিষয়ে তাঁর নুসরতের সঙ্গে কোনও কথা হয়নি। তাঁর কথায়, ‘‘ও একটা পার্টিতে আছে। আমি একটা পার্টিতে আছি। ও আমার বন্ধু। কিন্তু ওর-আমার বন্ধুত্বটা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থেকে।’’ একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ‘‘দিদিকে (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) আমি এখনও ভালবাসি। শ্রদ্ধা করি। বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার আগেও আমি ওঁকে বার্তা পাঠিয়ে আশীর্বাদ চেয়েছি। ওঁকে আমার প্রণাম।’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here