দেশজুড়ে অক্সিজেনের আকাল নিয়ে মোদীকে বিঁধে টুইট সায়নী, নুসরতের

0

কলকাতাঃ দেশ জুড়ে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। বাংলাতেও হু হু করে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। প্রতিদিন হাজার-হাজার মানুষ নতুন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু সংখ্যা। এই পরিস্ততিতে দেশজুড়ে আকাল দেখা দিয়েছে অক্সিজেনের ভাণ্ডারে। আর সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তীব্র কটাক্ষ করে টুইটে করলেন তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ এবং নুসরত জাহান।

সম্প্রতি সায়নী ঘোষ একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। তাতে দেখা যাচ্ছে, শ্মশানে একের পর এক সাজানো করোনায় আক্রান্তদের মৃতদেহ। কোথাও আবার চিতা জ্বলছে। টিকা নেই, অক্সিজেন নেই। সেজন্যই জারি এমন মৃত্যুমিছিল। আর এই সমস্ত কিছুর জন্য দায়ী প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত। টুইটে সেকথাই লেখেন সায়নী। তিনি বলেন, “ক্ষমার অযোগ্য। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি আপনি এবং কেবলমাত্র আপনিই দেশে টিকা এবং অক্সিজেনের আকাল দেখা দেওয়ার জন্য দায়ী। ভারত ক্ষমা করবে না এবং ভুলবেও না।” পাশাপাশি, এই একই ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীকে বিঁধে টুইট করেছেন তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানও৷ তিনি লিখেছেন “আজ আমরা শ্বাস নিতে পারছি না কারণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের বাইরে অক্সিজেন রপ্তানি করছেন। অথচ তাঁর নিজের দেশের মানুষ নিঃশ্বাস নেওয়ার জন্য কাতরাচ্ছেন। ” এর সঙ্গেই নিচে আবার লেখেন, ‘এটা অপরাধ’!”

প্রতিবেশী রাজ্যগুলির মতো বাংলার সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেনের ঘাটতি এখনও সেভাবে দেখা না দিলেও পোর্টেবল অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রায় ‘শূন্য’ হয়ে গিয়েছে খোলা বাজার থেকে। আগে বিভিন্ন ওষুধের দোকানেই অক্সিজেন সিলিন্ডার ভাড়া পাওয়া যেত। কিন্তু এখন তাও মিলছে না৷ পরিস্থিতি যা তাতে চিকিৎসকদের একাংশ বলছেন, ‘‘যে ভাবে দৈনিক সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে ঠিক মতো অক্সিজেনের জোগান না-থাকলে বঙ্গেও এক সময়ে চূড়ান্ত সমস্যা দেখা দেবে।’’

অন্যদিকে রাজ্য থেকে অক্সিজেন অন্যত্র পাঠানো বন্ধ হোক, এই আর্জি জানিয়ে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। নবান্নের তরফে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, রাজ্যে অক্সিজেনের চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। পশ্চিমবঙ্গে অন্তত ৪৫০ মেট্রিক টন অক্সিজেন প্রয়োজন। কিন্তু দৈনিক ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন রাজ্য থেকে অন্যত্র পাঠাচ্ছে কেন্দ্র। প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও অক্সিজেন সরবরাহ যাতে ঠিকঠাক থাকে, তার আবেদন জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here