“৫০ লক্ষ মুসলিম অনুপ্রবেশকারীকে আমরা চিহ্নিত করব”, দিলীপ ঘোষ

0

কলকাতা: বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে ফের একবার সমালোচনার শীর্ষে বিজেপি-এর রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সিএএ বিষয়ে এবার তিনি আরও একবার হুঁশিয়ারি দিয়ে মন্তব্য করলেন। যার জেরে বিতর্ক তৈরি হল আবারও। গত রবিবার বারাসতে মিলনী ক্লাবের মাঠে এক প্রকাশ্য সমাবেশে তিনি বললেন, “৫০ লক্ষ মুসলিম অনুপ্রবেশকারীকে আমরা চিহ্নিত করব। দরকার হলে দেশ থেকে তাড়াব।”

সেই সঙ্গে তিনি বলেন, “তাহলে দিদি আর তেল মারবেন না। ভোটার না থাকলে কে তেল মারবে। এই .৫০ লক্ষ নাম কেটে গেলে দিদিমণির ভোট দু’কোটির নীচে নামবে। আমরা তিন কোটি হব। আগামী নির্বাচনে আমরা ২০০টা আসন পাব। আর দিদিমণির ৫০ টাও হবে না।”

সিএএ-এর বিরোধিতায় করায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো সরকার থাকলে কিছু হবে না। চারদিন ধরে আগুন জ্বালাবে। ৫০০ কোটি টাকার জিনিসপত্র নষ্ট করেছে। আমার-আপনার ট্যাক্সের টাকায় যে বাস-রেললাইন হয়, সে সমস্ত জ্বালিয়ে দিয়েছে। তাকে বরদাস্ত করব না আমরা।”

সম্প্রতি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দ্বিতীয় বারের জন্য বিজেপির রাজ্য সভাপতির পদে বসেছেন দিলীপ ঘোষ। শনিবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেছেন, সমাজের যে সমস্ত সদস্যরা সরকার নাগরিকত্বের প্রমাণ চাইলে তাঁরা কাগজপত্র দেখাবে না বলে মনস্থির করেছেন, শীঘ্রই তাঁরা তাদের মুখ দেখাতে লজ্জা পাবেন। নন্দীগ্রামে সিএএ বিরোধী বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে “পরজীবী” বলে কটাক্ষ করেছিলেন দিলীপ।

তিনি বলেছিলেন, “আজকাল পশ্চিমবঙ্গে অনেক বুদ্ধিজীবী মানুষ সাধারণ মানুষকে ‘জ্ঞান’ দিচ্ছেন এবং কর্কশ শব্দ সৃষ্টি করছেন। সিপিআইএম এই বুদ্ধিজীবীদের রাস্তায় এনে তা সৃষ্টি করছে এবং এখন, ‘দিদিমনি’ (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) তাদের উত্পাদন করার জন্য একটি কারখানা তৈরি করেছে। আজকাল যারাই রাস্তায় নেমে আসবে তাকে বুদ্ধিজীবী হিসাবে বিবেচনা করা হবে।”