১ জুলাই থেকে মেট্রো চালু হলেও সংক্রমণের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে না? উঠছে প্রশ্ন

0

কলকাতা: প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে শিথীল করা হয়েছে লকডাউন। শুরু হয়েছে আনলক-১। এরই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষনা করেছেন ১লা জুলাই থেকে চালু হতে পারে মেট্রো। প্রশ্ন উঠছে এখানেই। আনলক-১ চালু হওয়ার পর থেকে কলকাতার বাসে বাদুড়ঝোলা হয়ে অফিস যাচ্ছেন মানুষজন। ভ্যাপসা গরমে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার পর পাওয়া যাচ্ছে অটো। ভিড়ে ঠাসা বাসে তিল ধারণের জায়গা থাকছে না আজকাল। সামাজিক দূরত্ব তো দূরস্থ। এই সময় মেট্রোরেল চালু করা কতটা যুক্তিযুক্ত হবে?

প্রথমত, কবি সুভাষ থেকে নোয়াপাড়ার মাঝের সব ষ্টেশনের আকার এক নয়। বিভিন্ন ষ্টেশনের এন্ট্রি-এক্সিট গেটের সংখ্যাও এক নয়। এই পরিস্থিতিতে এমনিতেই অফিস টাইমে ভিড় সামলাতে নাজেহাল হয়ে যান মেট্রোরেলের কর্মচারীরা। লকডাউনের পর মেট্রো চালু হলেও সেই ভিড়কে সামলানো হবে কিভাবে?

দ্বিতীয়ত, বর্তমানে বেশিরবাগ মেট্রোই এসি রেক। ফলে বদ্ধ মেট্রোর ভিতর সংক্রমণের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে না? তৃতীয়ত, যদি মেট্রোগুলিতে কতজন যাত্রী যেতে পারবেন তা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয় তাহলে নোয়াপাড়া অথবা কবি সুভাষ স্টেশনে সব আসন ভরতি হয়ে গেলে মাঝের ষ্টেশনের যাত্রীরা উঠবেন কিভাবে? ব্যস্ততার সময়ে মেট্রো না পেলে যাত্রীরা ভাঙচুর করতে পারেন। কিন্তু প্রতিটি স্টেশনে মাত্র ১০ থেকে ১২ জন পুলিশ এবং আরপিএফ থাকেন। এরকম পরিস্থিতি তাঁরা সামলাবেন কিভাবে?

বলা বাহুল্য, উত্তর থেকে দক্ষিণ কলকাতার মধ্যে সংযোগ স্থাপনের সবচেয়ে উপযুক্ত পরিবহন হল মেট্রো। রাজ্যসরকারের নির্দেশে সমস্ত সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে যাওয়ায় মেট্রো চালু হলে অফিসযাত্রীদের কিছুটা সুবিধা হবে বইকি। কিন্তু ঝুঁকি হয়তো থেকেই যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here