রাজ্য সরকারের তৈরি ‘আরোগ্য সন্দেশ’, খেলেই করোনা আবহে বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

0

কলকাতা: বাঙালি মিষ্টি ভালবাসেনা এই কথা একেবারেই অবিশ্বাস্য। এটা কারর অজানা নয় যে বাঙালির বড় দুর্বলতা রয়েছে মিষ্টির প্রতি। শেষ পাতে মিষ্টি না হলে খাওয়াটাই যেন অসম্পূর্ণ থেকে যায়। করোনা আবহে বেশ কিছুদিন মিষ্টির দোকান বন্ধ থাকলেও পরবর্তীকালে তা খুলে দেওয়া হয়। মিষ্টির দোকান খোলার পরই মিষ্টি প্রিয় বাঙালির জন্য করোনা মিষ্টি নিয়ে হাজির হয়েছিল কলকাতার মিষ্টি বিক্রেতারা। তবে এবার করোনা আবহে বাঙালির মন ভরানোর সঙ্গে সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সুন্দরবনের খাঁটি মধু দিয়ে সন্দেশ তৈরি করা হবে বলে ঠিক করেছে রাজ্য সরকার। সেই সন্দেশের নাম দেওয়া হবে ‘আরোগ্য সন্দেশ’।

রবিবারেই প্রাণী সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের এক কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছে, ‘আরোগ্য সন্দেশ’ তৈরি করা হবে খাঁটি দুধ থেকে তৈরি কটন চীজ ও সুন্দরবন থেকে আনা খাঁটি মধু মিশিয়ে। তিনি বলেন, এই মিষ্টি কোনও কৃত্রিম স্বাদ যুক্ত করা হবে না এবং ‘আরোগ্য সন্দেশ’ শহর ও পার্শ্ববর্তী জেলাগুলিতে বিভাগের আউটলেটগুলিতে পাওয়া যাবে। খাঁটি দুধ ও সুন্দরবনের মধু মেশানো এই সন্দেশ পুরোপুরি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবে তবে এটি কোনও করোনা প্রতিষেধক নয়।

সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী মান্তুরাম পাখিরা বলেছেন, আরোগ্য সন্দেশ তৈরির মধু পীরখালী, ঝাড়খালি এবং সুন্দরবনের অন্যান্য এলাকার মৌমাছির থেকে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করা হবে। প্রাণী সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সন্দেশটি আরও দু’মাসের মধ্যে বাজারে আসবে এবং দাম সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যেই থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই মাসের শুরুতে কলকাতার একটি নামী মিষ্টির দোকানের চেইন একটি ‘ইমিউনিটি সন্দেশ’ নিয়ে প্রকাশ্যে এসেছিল। যারা দাবি করেছে যে এই সন্দেশে বিভিন্ন গুল্ম এবং মশলা রয়েছে যেমন হলুদ, তুলসী, জাফরান এবং এলাচ এবং হিমালয়ের মধু, যা করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here