আলুর দামে লাগছে ছেঁকা, বেসামাল বাঙালির হেঁশেল

0

অরিত্রা দাশগুপ্ত, কলকাতা : আলুর দাম কিছুতেই নাগালে আনতে পারছে না রাজ্য সরকার। বাঙালির হেঁশেলে আলুর উপস্থিতি চাইই চাই। সেই আলুতেই হাত দিলে ছেঁকা লাগছে। জ্যোতি আলুর দাম ৩২ টাকা এবং চন্দ্রমুখী আলু ৩৬ টাকা কিলো। পাইকারি বাজারে আলুর দাম বাড়ায় এই অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি বলে দাবি খুচরো বিক্রেতাদের। অন্যান্য সবজির দাম আকাশছোঁয়া। বাঙালির পাতে একমাত্র ভরসা ছিল আলু। কিন্তু সেই আলুর এমন অস্বাভাবিক দামে মাথায় হাত আমজনতার।

খুচরো বাজারের জ্যোতি আলু পৌঁছচ্ছে কেজিপ্রতি ৩২ টাকায়। ৩৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে চন্দ্রমুখী আলু। বাজারে গিয়ে বাঙালির মুখভার। বিক্রেতাদের দাবি, পাইকারি বাজারে আলুর দাম বাড়ায় খুচরো বাজারেও দাম বাড়াতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। পোস্তা বাজারে একদিনের ব্যবধানে বস্তাপ্রতি আলুর দাম বেড়েছে ১৫০ টাকা। জ্যোতি আলুর পাইকারি রেট কেজিপ্রতি ২৮ টাকায় পৌঁছেছে। পাইকারি বাজারে আলুর যোগান কম। তাই দাম বাড়ছে।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, কেন বাড়ছে আলুর দাম? করোনা পরিস্থিতি এবং অন্যান্য কারণে আলুর উৎপাদন কিছুটা কমেছে। কিন্তু রাজ্য সরকারের হিমঘরে এখনো প্রচুর পরিমাণে আলু মজুত রয়েছে। হিমঘর থেকে প্রয়োজনের তুলনায় আলু বাজারে কম। যার ফলে আলুর চাহিদায় ঘাটতি পরেছে। যার ফলে বাড়ছে দাম এবং কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বাড়তি লাভের জন্য কৃত্রিম সংকট তৈরি করেছে। যদিও এখনও সুফল বাংলা স্টলে ২৫ টাকায় মিলছে আলু। কিন্তু তারপরেও রাজ্য সরকারের নির্দেশ সত্ত্বেও খুচরো বাজারে আলুর দাম ক্রমশই ঊর্ধ্বমুখী। এই পরিস্থিতিতে আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে টাস্কফোর্সকে নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here