রহস্য মৃত্যু বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার শর্বরী দত্তের

0

কলকাতা: ফ্যাশন জগতে নক্ষত্রপতন। প্রয়াত ফ্যাশন ডিজাইনার শর্বরী দত্ত। বৃহস্পতিবার রাত ১২.১৫ নাগাদ কলকাতার ব্রড স্ট্রিটের বাড়িতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। বাড়ির বাথরুম থেকে উদ্ধার করা হয় তাঁর মৃতদেহ। ম্রিত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। পুরুষদের ফ্যাশনের সঙ্গে যুক্ত ফ্যাশন ডিজাইনার হিসাবে শর্বরী দত্তকে এক নামে সকলে চিনতেন। পুরুষদের ফ্যাশনে নতুনত্বের ছোঁয়া এসেছিল তাঁর হাত ধরেই। পোশাকে বাঙালিয়ানা মানেই সবার আগে আসত শর্বরী দত্তের নাম।

হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে অনুমান করা হচ্ছে। তবে শর্বরী দত্তের আকস্মিক মৃত্যু নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। শর্বরী দত্ত নিজের বাড়িতে ছেলে ও পুত্রবধূর সঙ্গে থাকতেন। তবে বৃহস্পতিবার ছেলে বা বউমার সঙ্গে দেখা হয়নি এমনটাই জানা গিয়েছে। বাথরুমের দরজা ভেঙ্গে তাঁর দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ এই বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। ঠিক কি কারণে মৃত্যু হয়েছে তা দেখার জন্য দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। সূত্রের খবর তাঁর পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক খুব একটা ভালো ছিল না। এমনকি তাঁর ব্রান্ডের নামের উপর ছেলের কোনও অধিকার ছিল না। ঠিক এই কারণেই তাঁর স্টোর ‘শূন্য’ তৈরি করেন রেশমি বাগচির সঙ্গে। ভারতীয় পুরুষদের ফ্যাশন নিয়ে গত ৩০ বছর ধরে কাজ করছেন তিনি।

পুরুষদের এথনিক কালেকশনে ভরে উঠেছিল তাঁর স্টোর ‘শূন্য। তাঁর হাত ধরেই ফ্যাশন দুনিয়ায় নীল, সবুজ, কালো, হলুদ রঙিন ধুতির চল হয়। তিনিই মিশরীয় সভ্যতার ছবি থেকে মধুবনী, যামিনী রায়–দেশ বিদেশের সংস্কৃতিকে পুরুষদের ফ্যাশনের সঙ্গে জুড়েছিলেন। রঙিন ধুতির পাড়ে কাঁথা স্টিচ বা রাজস্থানী প্রিন্ট এইগুলি তাঁকে আরও বিখ্যাত করে তুলেছিল। শর্বরী দত্ত ২০০৮ সালে তাঁর ধুতি পাঞ্জাবির উপর ইজিপ্ট ঘরানার কারুকার্য করে আন্তর্জাতিক পুরস্কারও জিতেছিলেন। ছেলেদের ফ্যাশনের ট্রেন্ডে এক অন্য মাত্রা যোগ করেছিলেন তিনি। সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ওয়েডিং কস্টিউমও তৈরি করেছিলেন। শুধু সৃজিত নয় টলিউদের একধিক অভিনেতার পোশাকের ডিজাইন তারই হাতে তৈরি। শর্বরী দত্তের আকস্মিক মৃত্যুতে স্তব্ধ ফ্যাশন দুনিয়া। টলিউড সহ বিভিন্ন মহল তাঁর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন।