এই মুহূর্তে বঙ্গে নির্বাচনে জয়ী হবে না বিজেপি, অবস্থান বুঝেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ভোট পেছানোর আর্জি জানাবে বিজেপি

0

কলকাতা: ২০২১-এ বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচন এখন বিজেপির পাথির চোখ। বর্তমান শাসক দল তৃণমূলকে সরিয়ে বাংলার শাসনভার নিজেদের হাতে নেওয়াই হল বিজেপির এক এবং একমাত্র লক্ষ। ঠিক সেই কারণেই দিল্লিতে বৈঠক সেরে ফেলেছেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, রাহুল সিনহা। তবে বাংলা দখল যে এতো সোজা হবে না তা আগেই বিজেপিকে জানিয়েছিলেন মুকুল রায়। এই মুহূর্তে ভোট হলে বিজেপি কোনও ভাবেই জয়ী হবে না তা ভালো করেই বুঝেছে বঙ্গ বিজেপি। তাই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন বাংলায় গণতন্ত্র নেই, বিরোধীদের কোনও অধিকার নেই, সুরক্ষা নেই। এই পরিস্থিতিতে নির্বাচন হতে পারে না। এই কারণেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানাবে বঙ্গ বিজেপি।

এই বৈঠক কলকাতাতে হওয়ার কথা থাকলেও রাজ্যের সিনিয়র নেতারা দিল্লিতে থাকায় বৈঠক দিল্লিতে হয়েছে। দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন বঙ্গ বিজেপি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরবেন বাংলার বেহাল পরিস্থিতি। বাংলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি খারাপ, বিরোধীরা আক্রান্ত হচ্ছেন, জঙ্গি ক্রিয়াকলাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই কারণেই বাংলায় এখনই ভোটের পরিবেশ নেই। তাই এখন নির্বাচন হওয়া উচিত নয় বলেই বৈঠকে বিজেপি নেতারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সমস্ত মতবিরোধ পিছনে ফেলে দিলীপ ঘোষ-মুকুল রায়েরা একমত প্রকাশ করে জানিয়েছেন তাঁরা বাংলায় ভোট পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানাবেন। দিলীপ ঘোষ রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে বলেছন এই সরকার থাকলে রাজ্যে কখনই নির্বাচন হবে না সুষ্ঠুভাবে। পাশাপাশি দিল্লিতে বৈঠকে ভোট যুদ্ধের রণনীতি নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

মূলত নির্বাচন নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতেই বিজেপির এই বৈঠক হয়। মুর্শিদাবাদে ছয় জন আল-কায়দার জঙ্গি ধরা পড়ার পরেই রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করেছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি অভিযোগ করে বলেছেন, মাওবাদী আর ইসলামিক জঙ্গিদের সক্রিয় করার চেষ্টা করা হচ্ছে ২০২১-এর নির্বাচনকে সামনে রেখে। তিনি কটাক্ষ করে বলেন বাংলাকেই সন্ত্রাসবাদী সুরক্ষিত আশ্রয়স্থল হসাবে নির্বাচন করে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চালাচ্ছে। অন্য দিকে দিলীপ ঘোষের পক্ষ আগে বলেছিল বাংলায় ভোট হলে বিজেপি ১৯০ টি আসন পাবে। কিন্তু সেটা যে এতো দ্রুত সম্ভব নয় তা জানিয়েছিলেন মুকুল রায়। এই নিয়েই তৈরি হয়েছিল মতবিরোধ। তবে এখন মুকুল রায়ের কথাকে মান্যতা দিয়েই ভোট পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানাবে বিজেপি।