রাজ্যে টিকাকরণের দ্বিতীয়দিনেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ১৪ জনের শরীরে, হাসপাতালে ভর্তি তিন

0

কলকাতা: বহু প্রতীক্ষার পর অবশেষে গত ১৬ জানুয়ারি থেকে দেশে শুরু হয়েছে করোনার টিকাকরণ। বাংলায় এসেছিল সিরাম ইন্সটিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড। কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল ভারতে অনুমতি প্রাপ্ত দুই ভ্যাকসিনই নিরাপদ। তবে বাংলায় প্রথম দিনে এই মারণ ভাইরাসের টিকা নেওয়ার পর শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল ১৪ জনের। দ্বিতীয় দিনেও ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ১৪ জনের শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। তাঁদের মধ্যে দুই জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, করোনার টিকা গ্রহণ করার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়াতে রাজ্যে বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তিন জন। তবে তাঁরা ভালো আছেন বলেই জানানো হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয়কুমার চক্রবর্তী সোমবার বলেছেন, “ভ্যাকসিন নেওয়ার পর ১৪ জনের মধ্যে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। তবে, তাঁদের মধ্যে দুই জনকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে । দু’জনই মহিলা ৷ একজনের বয়স ৩৪, অন্যজন ৪৬। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর প্রথম জনের কাঁপুনি শুরু হয় ৷ তিনি বমি করা শুরু করেন ৷ তাঁকে ভরতি করা হয় ডায়মন্ড হারবার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে। অন্যজনের জনেরও বমি ভাব দেখা দেয়, সঙ্গে শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা৷ তাঁকে ভরতি করা হয়েছে ফালাকাটা মাল্টি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে । বর্তমানে দু’জনই হাসপাতালের পর্যবেক্ষণে রয়েছন।”

বিশ্বের বৃহত্তম টিকাদান কর্মসূচী হিসাবে এই অভিযানের লক্ষ্য ছিল প্রথমে ফ্রন্টলাইন কর্মী, স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেওয়া হবে এবং তারপরে প্রথম পর্যায়ে শেষ পর্যন্ত তিন কোটি লোকের কাছে পৌঁছানো যাবে। প্রথম পর্যায়ে ইন্টিগ্রেটেড চাইল্ড ডেভলপমেন্ট সার্ভিসেস (আইসিডিএস) সহ সরকারি ও বেসরকারি খাতের স্বাস্থ্যকর্মীরা এই ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন। পূর্ব সূচী মেনেই চলছে করোনার টিকাকরণ।