বিধানসভা নির্বাচনের আগে হিট মমতার ‘দুয়ারে সরকার’, তথ্য দিয়ে জানালো নবান্ন

0

কলকাতা: বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের দামামা বেজে গিয়েছে। রাজ্যের শাসনভার নিজেদের হাতে রাখতে তৃণমূল যেমন মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে তেমনই বিজেপি নির্বাচনে জিতে ক্ষমতা নিজেদের হাতে রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বলা ভালো যে, রাজ্যে বিজেপিকে রুখতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের মাষ্টারস্ট্রোক ছিল ‘দুয়ারে সরকার’ ও ‘স্বাস্থ্যসাথী’ কর্মসূচী। সেটা যে বেশ গভীর ভাবে ২১-এর ভোট যুদ্ধের আগে রাজ্যবাসীর উপর প্রভাব ফেলেছে তা সাধারণ মানুষ থেকে বিরোধী সকলের জানা। তাই ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচীর মাধ্যমে রাজ্যবাসীর কাছে পৌঁছানোর পরিসংখ্যান নবান্ন তুলে ধরল।

নবান্ন থেকে প্রকাশ করা প্রকাশ করা পরিসংখ্যানে জানানো হয়েছে, এখনও পর্যন্ত মমতার মস্তিষ্ক প্রসূত এই কর্মসূচী কোটিরও বেশি মানুষকে পরিষেবা দিয়েছে। এবং এই ‘দুয়ারে সরকার’ থেকে পরিষেবা পেয়ে তাঁরা উপকৃত হয়েছেন বলেও নবান্ন থেকে উল্লেখ করা হয়েছে। শুরু থেকে গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার পর্যন্ত ১ কোটি ২০ লক্ষ ৬৮ হাজার ৪২ জন এই প্রকল্প থেকে সহায়তা পেয়েছে বলেই রাজ্য সরকার সূত্রে খবর। ‘দুয়ারে সরকার’ এই কর্মসূচীতে গিয়ে রাজ্যের প্রায় ৭৫ লক্ষ ৮৩ হাজার ৭০১ জন স্বাস্থ্য সাথী করাতে পেরেছেন বলেই জানাচ্ছে নবান্ন।

রাজ্য সরকারের দেওয়া তথ্যে আরও বলা হয়েছে, জাতি শংসাপত্র পেয়েছেন ১২ লক্ষ ২৪ হাজার ৩৪০ জন, খাদ্য সাথী কার্ড পেয়েছেন ১১ লক্ষ ৯ হাজার ১৯১ জন। এমনকি ১০ লক্ষ ৩২ হাজার ৯২ জন পেয়েছেন ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পের পরিষেবা। সেই সঙ্গে শিক্ষাশ্রী, জয় জোহর, তফসিলি বন্ধু, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, ঐক্যশ্রী, মানবিক, কৃষকবন্ধু সহ নানান সরকারী পরিষেবাকে মানুষ গ্রহণ করছেন বলেই তথ্যে উল্লেখ করা হয়েছে। বলা বাহুল্য যে এই তথ্য পেশ করে রাজ্য সরকার বিরোধীদের বোঝাতে চাইচ্ছে রাজ্যের জন্য তৃণমূল সরকার কতটা কি করেছে। এই কর্মসূচীগুলির ফলে বিরোধীরা কিছুটা ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।