ভিক্টোরিয়া কাণ্ডে তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়ের মন্তব্যে প্রথম বিধানসভার পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে তুলকালাম

0

কলকাতা: বর্তমানে বঙ্গ রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে ভিক্টোরিয়ায় বিজেপি সমর্থকদের জয় শ্রী রাম স্লোগান। বৃহস্পতিবার সেই ঘটনার আঁচ পড়ল বিধানসভার প্রথম পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনেও। যা নিয়ে এদিন বিধানসভায় রীতিমত তুলকালাম বেঁধে যায়। এরই মধ্যে বাম কংগ্রেসের উদ্দেশ্যে তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়ের মন্তব্য ছিল ঘৃতাহুতির মতো। পালটা জবাব দিল বাম-কংগ্রেসও।

প্রসঙ্গত আজ থেকে শুরু বিধানসভার পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন। আর প্রথম অধিবেশনের শুরু থেকেই বিধানসভার পরিস্থিতি ছিল নেতাজী জয়ন্তীতে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের ঘটনা নিয়ে সরগরম। এদিন শুরুতেই ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) অপমান নিয়ে প্রস্তাব আনতে চায় সরকার পক্ষ। পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “জন্মজয়ন্তীতে নেতাজিকে স্মরণ না করে নিন্দনীয়ভাবে ওই অনুষ্ঠানের মঞ্চকে রাজনৈতিক মঞ্চের রূপ দেওয়া হয়েছে। এতে নেতাজিকে কালিমালিপ্ত করা হয়েছে। ওই মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ করে অপমান করা হয়েছে।”

সেসময় বক্তব্য রাখতে গিয়ে ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে ‘নিন্দা প্রস্তাব’ আনেন তাপস রায়। ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে আয়োজিত অনুষ্ঠানে নেতাজির অবমাননা হয়েছে এই কথা জানিয়ে তাপস রায় বলেন, ‘তিনি বাঙালি হিসাবে লজ্জিত, ভারতীয় হিসাবে ক্ষুব্ধ।’ সেই সময়ে বাম-কংগ্রেস পক্ষ থেকে সুজন চক্রবর্তী ও অসিত মাল বলতে থাকেন, এই ভাবে বিধানসভায় কোনও ‘রেজিউলেশন’ আনা যায় না। এরপরই মেজাজ হারিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক তাপস রায় সকলের উদ্দেশ্যে ‘নির্লজ্জ বেহায়া’ শব্দদু’টি উল্লেখ করেন।

যা নিয়ে প্রতিবাদ করে বাম-কংগ্রেস। ওয়েলে নেমে বিক্ষোভও দেখাতে থাকেন তাঁরা। ধাক্কাধাক্কিও শুরু হয়ে যায়। যদিও পরে বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ও তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়ের ব্যবহৃত শব্দের বিরোধিতা করেন। সুজন চক্রবর্তী বলেন, “নেতাজির জন্মবার্ষিকীতে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান নিন্দনীয়। কিন্তু তাঁদের যেভাবে অপমান করা হল তাও নিন্দনীয়।”