“মানুষের পাশে থেকে বুক চিতিয়ে কাজ করলে দলবদলের প্রয়োজন হত না”, রাজীবকে কটাক্ষ পার্থর

0

কলকাতা: শনিবার অমিত শাহের পাঠানো বিশেষ বিমানে দিল্লি রওনা দেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের বেশ কয়েকজন নেতা। শেষ মুহূর্তে অমিত শাহের বঙ্গ সফর বাতিল হয়ে যায়। তাই আর অপেক্ষা না করেই দিল্লির উদ্দেশ্য রওনা হন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রবীর ঘোষাল, বৈশালী ডালমিয়া সহ বেশ কিছু জন। সেখানেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সাথে দেখা করে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেন। প্রকাশ্য জনসভায় রাজনৈতিক দলের পতাকা হাতে তুলে না নিয়ে রাজ্যের প্রাক্তন বনমন্ত্রীর জন্য বিশেষ বিমান কেন ব্যবস্থা করা হল সেই প্রশ্নই খুঁজে বেড়াচ্ছে বাংলার রাজনৈতিক মহল।

এই বিষয়ে সদ্য দলত্যাগী নেতাকে কটাক্ষ করতে ছাড়ছেন না তৃণমূল নেতারা। পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “দলবদলে উৎসাহ দিতে চার্টার্ড প্লেন একটি নতুন সংযোজন। বাংলার মানুষ দেখছেন, ভারতের মানুষ দেখছেন। যাঁরা গেলেন, তাঁরা যেমন বুক চিতিয়ে বলছেন, সেভাবে মানুষের পাশে থেকে যদি বুক চিতিয়ে কাজ করতেন তাহলে দলবদলের প্রয়োজন হত না। এতদিন তো মন্ত্রী ছিলেন, পারেননি কেন?”

এর আগে মঙ্গলবার রাজীব জানিয়েছিলেন যে, তিনি ভোটে দাঁড়াবেন এবং ডোমজুড় থেকেই দাঁড়াবেন। দিল্লি উড়ে যাওয়ার আগে রাজীব বলেন, “আমার ভিশন-মিশন একটাই বাংলার মানুষের স্বার্থে কীভাবে কাজ করব। আমি মনে করি, কেন্দ্র-রাজ্যের সম্পর্ক না থাকলে বাংলার মানুষের জন্য উন্নয়ন করা যায় না।” রবিবার ডুমুরজলা স্টেডিয়ামে বিজেপির জনসভা থেকে রাজীব বলেন, “কেন্দ্র ও রাজ্যে এক সরকার চাই। আমরা চাই ‘ডবল ইঞ্জিন’ সরকার। যা মানুষকে দিশা দেখাতে পারবে।”