ফের দুঃসংবাদ মধ্যবিত্তের! রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে উর্ধমুখী পাইকারী সূচক

0

কলকাতা: রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতে নাজেহাল সাধারন মানুষ। নাভিশ্বাস উঠছে মধ্যবিত্তদের। ফেব্রুয়ারি মাসেই লাগাতার দুবার দাম বেড়েছে ভর্তুকিহীন রান্নার গ্যাসের। মাসের শুরুতেই ২৫ টাকা দাম বাড়ানো হয়। আবার নতুন করে গতকাল দাম বড়ানো হয়েছে ৫০ টাকা। অর্থাৎ এক মাসে দু’দফায় রান্নার গ্যাস বেড়েছে ৭৫ টাকা। রান্নার গ্যাসের বর্তমান মূল্য হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৮০০ টাকা। আর এই লাগাতার বৃদ্ধিতে ফুঁসছেন সাধারণ মানুষ।

অন্যদিকে লিটার প্রতি পেট্রোলের ডিজেলের দামবৃদ্ধিও অব্যাহত। অতীতের সমস্ত রেকর্ডকে ভেঙে দিয়েছে। সোমবার ফের নতুন করে দাম বেড়েছে দুই জ্বালানিরই। এই নিয়ে লাগাতার ৭ দিন দাম বাড়ল পেট্রোলের ডিজেলের। কলকাতায় লিটার প্রতি পেট্রোলের দাম ৯০ টাকা ২৫ পয়সা। প্রতি লিটার ডিজেলের দাম পড়ছে ৮২ টাকা ৯৪ পয়সা। দেশের বাকি রাজ্যগুলিরও অবস্থা একই। মুম্বই ও চেন্নাইতে এই মুহূর্তে লিটার পিছু পেট্রল কিনতে হচ্ছে যথাক্রমে ৯৫.৪৬ টাকা ও ৯১.৯১ টাকা।

শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, পেট্রোলিয়াম এবং প্রাকৃতিক গ্যাসের সূচক জানুয়ারিতে বেড়েছে ৯.৪৮ শতাংশ। ২.৬৭ শতাংশ বেড়েছে খনিজ পদার্থের সূচক। পেট্রোলের ডিজেলের এই ইনিংস দীর্ঘায়িত হবে। কারণ আন্তর্জাতিক বাজারে এই মুহূর্তে অপরিশোধিত তেলের দাম ৬০ ডলার ছাপিয়ে গিয়েছে। তাই আপাতত জ্বালানির এই মূল্যবৃদ্ধি থেকে সাধারণ মানুষের নিস্তার নেই বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল ডিজেলের দ্বিমুখী চাপে যখন অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ ঠিক সেই সময় আরও এক দুঃসংবাদ তাদের জন্য। কারণ জ্বালানির এই লাগাতার বৃদ্ধির প্রভাব পড়েছে পাইকারি মূল্যসূচকে বা হোলসেল প্রাইস ইনডেক্স(ডব্লিউপিআই)-এ। ডিসেম্বরে যেখানে ১.২২ শতাংশ ছিল, সেখান থেকে জানুয়ারির ডব্লিউপিআই বেড়ে হল ২.৩ শতাংশ। কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রক থেকে শুক্রবার এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। তবে গত বছরের জানুয়ারিতে এই হার ছিল ৩.৫২ শতাংশ।

তবে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের মূল্যসূচক কমেছে ১.৭৭ শতাংশ। খাদপণ্যের মূল্যসুচকও কমেছে। ডিসেম্বরের ০.৯২ শতাংশ থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ০.২৬ শতাংশ। কিন্তু জ্বালানি-সহ অন্যান্য সূচক এতটাই বেড়েছে যে, সামগ্রিক সূচক লাফিয়ে বেড়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই এর প্রভাব পড়বে খুচরো বাজারেও।