রাজনৈতিক প্রভাব পড়বে না বন্ধুত্বে, যশের বিজেপি যোগদানের দিন নিজ ভঙ্গিতে নুসরত জাহান

0

কলকাতা: টলি পাড়ায় যশ ও নুসরাতের বন্ধুত্ব সর্বজনবিদিত। এবার সেই যশ ‘দিদির আশীর্বাদ’ নিয়ে যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। আর নুসরাত ‘দিদির দূত’ কর্মসূচির বড় মুখ। এবার বুধবার দক্ষিণ কলকাতায় পাঁচতারা হোটেলে যশের বিজেপিতে যোগদানের দিন তৃণমূল সাংসদ অভিনেত্রী তথা যশের বন্ধু নুসরত জাহান বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে স্বাভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতেই আক্রমণ শানালেন। একইসঙ্গে তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, বন্ধুত্ব আর রাজনীতি তিনি মেলাবেন না।

টুইটে আক্রমণ করে নুসরত গত বছর ৩১ জানুয়ারি দিলীপ ঘোষের করা একটি মন্তব্য মনে করিয়েছেন।অভিনেত্রী-সাংসদ লেখেন, “আমাদের ছেলেরা ঠিক কাজই করেছে। ওই মহিলার ভাগ্য ভাল। হেনস্থা ছাড়া তাঁকে আর কিছু করা হয়নি। প্রতিবাদ করলেই মহিলাদের এভাবে চরিত্রহনন করে বিজেপি। বলে রাখি, গত বছর ৩১ জানুয়ারি দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে প্রতিবাদরত এক মহিলার হাত থেকে পোস্টার ছিনিয়ে নিয়েছিলেন বিজেপি কর্মীরা। সেই ঘটনাতেই এই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। আবারও লজ্জাজনক মন্তব্য”।

রাজ্য বিজেপি সভাপতি মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে বলেছিলেন, “তৃণমূল কর্মীরা বলেন তাঁদের নেত্রী মহিলা বলে তাঁকে আক্রমণ করা হয়। কিন্তু আপনারই বলুন, একজন মহিলা আরেকজন মহিলার চরিত্রের দিকে কী করে আঙুল তুলতে পারেন? এই রাজ্যে দিদিমণি ধর্ষণের ক্ষতিপূরণ বেঁধে দিয়েছেন। ২০ হাজার, ৪০ হাজার, ৫০ হাজার।”

তবে রাজনৈতিক দল আলাদা হলেও তার প্রভাব কখনই বন্ধুত্বে পড়বে না সেকথাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন দুজন। যশ বলেন, ”আমি এখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সম্মান করি। আমি এখনও নিজেকে ওনার ভাই বলি।” আর বন্ধু নুসরত প্রসঙ্গে অভিনেতা বলেন, ”নুসরত আমার বন্ধু। আমাদের বন্ধুত্ব জীবিকার সূত্রে। আমাদের পেশা অভিনয়। নুসরত তাঁর মতাদর্শে তৃণমূলে রয়েছে। আমি আমার মতাদর্শে বিজেপিতে। আমার আরেক বন্ধু মিমিও (Mimi Chakraborty) তৃণমূলে রয়েছেন। কিন্তু আমরা আবার একসঙ্গে কাজ করব। রাজনীতির রঙ এখানেই থাক। টলিউডে রাজনীতির রঙ না লাগানোই ভালো।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here