“পায়ে আঘাতের ঘটনা নির্বাচনী ভণ্ডামি”, মমতাকে তীব্র আক্রমণ অধীরের

0

কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক পরিস্থিতি দিন দিন উত্তপ্ত হচ্ছে। নির্বাচনী প্রচারের সময় তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পায়ে আঘাত লাগে। বাঁ পায়ের গোড়ালি, পায়ের পাতা, গলা ও কাঁধে চোট নিয়ে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি। আপাতত আগামী ৪৮ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে। তবে বিজেপি এবং কংগ্রেস উভয়ই এই ঘটনাকে মিথ্যা এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী নাটক হিসাবে বর্ণনা করেছে।

পশ্চিমবঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী মমতার বিরুদ্ধে নির্বাচনী ভণ্ডামির অভিযোগ এনেছেন। অধীর রঞ্জন বলেছেন, “নন্দীগ্রাম সহ গোটা বাংলায় পরিস্থিতি আরও অবনতি দেখে মমতা এখন তাকে আক্রমণ করার ভান করে জনগণের সহানুভূতি বাড়ানোর চেষ্টা করছেন।” অধীর রঞ্জন চৌধুরী কটাক্ষ করে বলেছেন যে, “তারপরে সিবিআই, সিআইডি বা অন্য কোনও সংস্থার তদন্ত করা উচিত। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন যে মুখ্যমন্ত্রীর পুরো সুরক্ষা হঠাৎ কোথায় গেল? পুরো এলাকায় সিসিটিভি রয়েছে যখন তদন্ত করা হবে তখন দুধের দুধ এবং জলের জল থাকবে।”

মুখ্যমন্ত্রীর পায়ে প্লাস্টারের প্রসঙ্গে অধীর রঞ্জন বলেছেন, “কিছুটা আঘাত লাগলেও মমতা ভণ্ডামি করছেন।” তাৎপর্যপূর্ণভাবে, একদিন আগে কংগ্রেস নেতা মনীষ তিওয়ারি এবং পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের মতো নেতারা এই বিষয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশচ করেছিলেন। ‘নাটক করছেন মমতা’ – নির্বাচনের প্রাক্কালে নিজের কেন্দ্রে প্রচারে গিয়ে রাজ্যের খোদ মুখ্যমন্ত্রীর আহত হওয়ার ঘটনাকে এইভাবেই ব্যাখ্যা করেছেন বাংলায় কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। এমনকি রাজ্য বিজেপির অন্যন্য শীর্ষ নেতৃত্বও বেনজির মন্তব্য থেকে বিরত থাকেননি।