শুক্রবারই হাসপাতাল থেকে ছাড়া হতে পারে মুখ্যমন্ত্রীকে

0

কলকাতা : শুক্রবারই হাসপাতাল থেকে ছাড়া হতে পারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী নিজেই নাকি বাড়ি থেকে চিকিৎসা করাতে চেয়েছেন। তাই শুক্রবারই নাকি এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে ছাড়া হতে পারে। তারউপর শিয়রে হাই ভোল্টেজ নির্বাচন। শীঘ্রই মাঠে ময়দানে ফিরতে হবে তৃণমূল সুপ্রিমোকে। সেই মোতবেক ভিডিও বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবারই জানিয়ে দিয়েছেন, প্রয়োজন পড়লে হুইল চেয়ারে বসেই প্রচারে নামবেন। আর দলনেত্রীর এই বার্তায় রীতিমত উত্তেজিত তৃণমূল কর্মীরা। স্লোগান উঠছে, ভাঙা পায়েই খেলা হবে।

প্রসঙ্গত একুশে নিজের কেন্দ্র নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর ‘আহত’ হওয়ার ঘটনায় সরগরম রাজনৈতিক মহল। তাও ভোটের মুখে। বুধবার রাতে চোট লাগে মুখ্যমন্ত্রীর। ওইদিনই ওনাকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয়। এক্স রে’তে ধরা পড়ে, নন্দীগ্রামের ঘটনায় বাঁ পায়ের ‘টার্সাল বোন’ – এ মারাত্মক চোট পেয়েছেন তিনি। টার্সাল হাতের ভিতরের মজ্জাতেও রক্তক্ষরণ হয়েছে। যা অত্যন্ত গুরুতর। বৃহস্পতিবার সামন্য কমে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা করাবেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণের পর ৬ জন চিকিৎসককে নিয়ে গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডও এ বিষয়ে সম্মতি দিয়েছে। তবে বাড়িতে গেলেও চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে থাকবেন তিনি। বাড়ি ফেরার পরে মমতাকে কী কী সাবধানতা। মুখ্যমন্ত্রীর জন্য স্বনিয়ন্ত্রিত হুইল চেয়ারও আনানো হয়েছে। তবে বাড়ি গেলেও মুখ্যমন্ত্রীকে কিছু সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। সেইমতো ডাক্তার কিছু নির্দেশিকা জারি করেছে।

শুক্রবার সকালে জানা গিয়েছিল, চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন মমতা। আগের চেয়ে অনেকটাই সেরে উঠেছে আঘাতপ্রাপ্ত জায়গাগুলি। মুখ্যমন্ত্রীর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা ৬ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড মুখ্যমন্ত্রী শারীরিক অবস্থা এবং পরবর্তী পর্যায়ের চিকিৎসার বিষয়টি পর্যালোচনা করে তাঁকে বাড়ি যাওয়ার ‘ছাড়পত্র’ দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চটি পরে হুইল চেয়ারে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করলে তবেই বাড়ি ফিরবেন মমতা। এমনটাই জানা গিয়েছে হাসপাতাল সূত্রে।