নির্বাচনের প্রার্থী মনোনীত না হওয়ায় ক্ষোভে বিজেপি থেকে ইস্তফা শোভন-বৈশাখীর

0

কলকাতা: বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর তা নিয়ে অসস্তুষ্ট শোভন-বৈশাখী। তাঁরা বিজেপি দল ছাড়তে পারেন তেমনটাই খবর ছিল সূত্রের মারফত। এই মর্মেই শোভন -বৈশাখী ইতিমধ্যেই চিঠি পাঠিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দীলিপ ঘোষকে।গতকাল অর্থাৎ রবিবার বিজেপির আংশিক প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হয়েছে। এই তালিকায় একাধিক চমক থাকলেও তাতে নাম নেই শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করলেন শোভন-বৈশাখী। কলকাতার যে কোনও একটি কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, বেহালা পূর্ব কেন্দ্র থেকে এবার তৃণমূলের প্রার্থী হচ্ছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়। তৃণমূলের এই প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পরেই শোভন-বৈশাখীকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন রত্না চট্টোপাধ্যায়। রত্নার সেই চ্যালেঞ্জ গ্রহণও করেছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু বিজেপির তরফে বেহালা পূর্ব কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করা হয়েছে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে। আর তারপরেই ক্ষুব্ধ হয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় ফেসবুকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে করা একটি তাৎপর্যপূর্ণ পোস্টও করেছেন। এই পোস্টে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, “আপনি সব সময় আমার আদর্শ হয়ে থাকবে। আজকের অপমান আমাদের মনোবল ভাঙতে পারবে না। আমরা লড়াই করব, ঘুরে দাঁড়াব। চক্রান্ত, বিশ্বাসঘাতকতা দীর্ঘস্থায়ী হবে না। বেহালার মানুষ আপনাকে ভালবাসে, এটাই আপনার সবথেকে বড় শক্তি।”

কার্যত স্পষ্ট বৈশাখীর করা এই পোস্টে যে বেহালা বা কলকাতার অন্য যেকোনো কোনও কেন্দ্র থেকে থেকে বিজেপির পক্ষে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে প্রার্থী না করায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন তিনি। এই গোটা ঘটনার পিছনে কার্যত চক্রান্ত দেখছেন বৈশাখী।তিনি অভিযোগ তুলছেন বিশ্বাসঘাতকতারও। এদিকে ভোটের একদম মুখে এই ভাবে শোভন-বৈশাখীর প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে দেওয়াতে কার্যত অস্বস্তিতে পড়েছেন গেরুয়া শিবির। শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হবে কিনা সে বিষয়ও উঠছে প্রশ্ন। অপরদিকে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে বিজেপি বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের প্রার্থী না করায় বেশ খুশি হয়েছেন রত্না চট্টোপাধ্য়ায়। এই বিষয়ে রত্না বলেন, “শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে কেউ প্রার্থী হলে আমাকে পাঁকে নামতে হত। কিন্তু রাজনীতিতে আনকোরা পায়েলকে দাঁড় করানোয় সেটা করতে হল না।”