স্বামী শোভন ত্যাগ করলেও রত্নাকে ত্যাগ করেনি স্বামীর পরিবার 

0

কলকাতা: আসন্ন নির্বাচনে এবারের বেহালা পূর্ব কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী শোভন জায়া রত্না চট্টোপাধ্যায়।রত্নার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ছেলে সপ্তর্ষি ও শোভন চট্টোপাধ্যায়ের দাদা চন্দন চট্টোপাধ্যায়ও। বিগত দিনে প্রার্থী হিসাবে শোভন চট্টোপাধ্যায় মনোনয়ন পত্র দেওয়ার সময় সব সময় ভাইয়ের পাশে থাকতেন চন্দন বাবু।কিন্তু এবার তিনি থাকলেন তাঁর ভ্রাতৃবধূ রত্নার চট্টোপাধ্যায়ের পাশে। পেশায় চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট চন্দন চট্টোপাধ্যায়।

শুক্রবার আলিপুরে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা সদরের নতুন প্রশাসনিক ভবনে রত্নার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পরে চন্দন বাবু বলেন, ‘বেহালা পূর্ব থেকে বিজেপি শোভনকে দাঁড় করালে রাস্তার ভবঘুরেরাও ওকে ভোট দিতেন না। রত্না জিতবেই। আমাদের বাড়ির বধূ হিসেবে নয়, রত্না জিতবে তৃণমূল প্রার্থী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিনিধি হিসেবে।’ এই প্রসঙ্গে এদিন রত্না -শোভন পুত্র সপ্তর্ষি ও বলেন, ‘আমরা ইতিহাসে রাজা-রানির গল্প পড়েছি। চার বছর ধরে রানির লড়াইটা দেখছি। রাজা রণে ভঙ্গ দিয়ে পালিয়েছেন। রানি রাস্তায় নেমে লড়াই করছেন। রাজ্যের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার মাকে জানেন বলেই তাঁকে দায়িত্ব দিয়েছেন।’

কার্যত খুব স্পষ্ট বোঝাই যাচ্ছে স্বামী শোভন রত্না কে ত্যাগ করলেও ,স্বামীর পরিবার তাঁকে ত্যাগ করেনি তার পাশেই রয়েছেন সকলে। এখন দেখার প্রাক্তন মেয়র তথা প্রাক্তন তৃণমূল নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের গড়ে তাঁরই স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় এবারের প্রার্থী, বেহালা বাসী কতটা সমাদরে রত্নাকে গ্রহণ করেন এবং জয়ী করেন।