আমফানের স্মৃতি উস্কে ধেয়ে আসছে ‘টাউকটে’, ঘণ্টায় ১৫০ কিমি বেগে আছড়ে পরবে বাংলায়

0

কলকাতাঃ আমফানের তাণ্ডব এখন ভুলতে পারেনি মানুষ। ভয়ংকর ঝড়ের দাপটে ঘরবাড়ি, ক্ষেত-জমি হারিয়েছে অনেকে। আমফানের সেই স্মৃতি উস্কে দিয়ে এপ্রিলেই স্থলভাগে আছড়ে পড়তে চলছে ঘূর্নিঝড় ‘টাউকটে’। এমনই পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়াবিদরা।

প্রতি বছর এপ্রিল-মে মাসে বিশেষত বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগরে ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হয় আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, ২৯শে মার্চের পরে বঙ্গোপসাগরে ঘূর্নাবাত সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ঝড়ের উৎপত্তি সম্পর্কে জানতে পারা গেলেও গতিপথ সম্পর্কে এখনই কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। তবে তার নাম ঠিক হয়ে গিয়েছে ‘টাউকতে’। পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা কিংবা মায়ানমার উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে এই ঘূর্ণিঝড় যার গতিবেগ হতে পারে ঘণ্টায় প্রায় ১৫০ কিমি।

বিশেষত মার্চের শেষ থেকে মে মাস পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় সংগঠিত হওয়ার বিশেষ সম্ভাবনা থেকে থাকে ৷ বাতাসের প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্পই ঘূর্ণিঝড়ের পক্ষে পরিবেশ সৃষ্টি করে থাকে ৷ সমুদ্র পৃষ্ঠে তাপমাত্রা এই সময়ে প্রায় ৩০ ডিগ্রি ছুঁইছুঁই থাকে ।

ভারত মহাসাগরে কোনও ঘূর্ণিঝড় সংগঠিত হলে নামকরণ করে বিশ্বের ১৩টি দেশ ৷ উত্তর ভারতের ৪০-৪৫ ডিগ্রি পূর্ব থেকে ৯৫-১০০ ডিগ্রি পূর্বে অবস্থিত ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করে ভারতীয় আবহাওয়া দফতর বা আইএমডি ৷ ১৩টি দেশের পক্ষ থেকেও ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ করা হয়ে থাকে ৷ যেমন ভারত, ইরান, কাতার, ওমান, সৌদি আরব, পাকিস্তান, মায়ানমার, আরব আমির শাহি, মলদ্বীপ, থাইল্যান্ড, ইয়েমেন ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here