ভয়াবহ আকার নিচ্ছে করোনা, রাজ্যে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত দুই হাজারের বেশি, মৃত্যু ৭ জনের

0

কলকাতা: বছর ঘুরে ফিরছে সেই বিভীষিকাময় দিনগুলি! গত বছর এই সময়ই ভারতে প্রভাব বাড়াতে শুরু করেছিল করোনা। আর এখন এই মারণ ভাইরাস নতুন করে জাঁকিয়ে বসেছে। গত বছরও আক্রান্তের যে সংখ্যাটার সাক্ষী হয়নি দেশ, সেটাই হল এবছর। দিন দুয়েক আগেই দৈনিক সংক্রমণ ছাড়িয়েছিল এক লক্ষের গণ্ডি। এবার তা আরও বাড়ল। পাল্লা দিয়ে ঊর্ধ্বমুখী মৃতের সংখ্যাও।

মঙ্গলবার এ রাজ্যে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার পেরিয়ে গেল। গত ফেব্রুয়ারিতে ২০০-র নীচে নেমে যাওয়া দৈনিক সংক্রমণ এখন আশঙ্কার কারণ হয়ে উঠেছে। রাজ্যের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক সংক্রমণে শীর্ষেই রয়েছে কলকাতা। তার পরে উত্তর ২৪ পরগনা। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের, গত ২ মাসের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ। সোমবার দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১ হাজার ৯৬১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় তা আরও কিছুটা বেড়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের মঙ্গলবার প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫৮ জন। এর ফলে রাজ্যে এখন মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৯৭ হাজার ৬৩৪। দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যায় শীর্ষে কলকাতা (৫৮২) এবং উত্তর ২৪ পরগনা (৪৭২)। তার পরেই রয়েছে হাওড়া (১৭৯), দক্ষিণ ২৪ পরগনা (১৩০), বীরভূম (১২৬), হুগলি (৯২), পশ্চিম বর্ধমান (৭৫) এবং পূর্ব মেদিনীপুর (৪৭)। এ ছাড়া আলিপুরদুয়ার (১১), দার্জিলিং (৩৩), জলপাইগুড়ি (১২), উত্তর দিনাজপুর (৪০), মালদহ (৩৭), মুর্শিদাবাদ (৫৫), নদিয়া (৫১), পুরুলিয়া (২৯), বাঁকুড়া (১৫) এবং পশ্চিম মেদিনীপুর (২৭)-এর মতো জেলা। প্রায় সর্বত্রই বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও।

প্রতি দিন যত সংখ্যক মানুষের কোভিড টেস্ট হয় এবং তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকে ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯ হাজার ৩৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাতে সংক্রমণের হার দাঁড়িয়েছে ৭ শতাংশ। এ নিয়ে মোট ৯৩ লক্ষ ৩৩ হাজার ৮০১ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। তবে শুধু বাড়তে থাকা সংক্রমণই নয়, চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনার নয়া স্ট্রেনও। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানাচ্ছে, পাঞ্জাবে ৮০ শতাংশ মানুষের সংক্রমণের কারণ ব্রিটেন থেকে আসা স্ট্রেন। নির্বাচন, কৃষক বিক্ষোভের মতো কারণে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে বলেো দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here