বছর ঘুরতেই পুলওয়ামার শহিদকে ভুলে গেল কেন্দ্র সরকার

নয়াদিল্লি: ভালোবাসার দিনেও বোমা-গুলিতে কেঁপে উঠেছিল উপত্যকা। এক বছর আগের সেই ক্ষত আজ দগদগে। পুলওয়ামার শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানিয়েছেন দেশবাসী। দিল্লিতে শহিদদের উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহেরা। তবে শ্রদ্ধা জানাতে কি ফাঁকি থেকে গিয়েছে কোথাও?

পুলওয়ামা হামলায় বাকি জওয়ানদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়েছিলেন জয়পুরের ২৭ বছর বয়সী রোহিতাশ লাম্বা। লড়াইয়ের পর জীবিত বাড়ি ফেরেননি বীর জওয়ান। তবে দেশ তাঁকে ভুলে গেল খুব তাড়াতাড়ি। শুক্রবার অন্যান্য শহিদদের মত শ্রদ্ধা জানানো হল না তাঁকে।

সন্ত্রাস, হামলা, দিল্লি-এসবের কিছুই বোঝে না শহিদ রোহিতাশের পরিবার। তাঁরা শুধু জানতে চান, ছেলের মৃত্যুর জন্য কারা দায়ী। জওয়ান রোহিতাশের মৃত্যুর পর এক বছর পেরিয়ে গেলেও ওই হামলার মূলে কারা ছিল, সেই বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি বলে অভিযোগ জওয়ান রোহিতাশের বাবা এবং গ্রামপ্রধানের।

রোহিতাশের ছোট ভাই জিতেন্দ্র লাম্বা বলেন, “টানা এক বছর ধরে শুধু মন্ত্রীদের কার্যালয়ের চক্কর কাটছি। কিন্তু সঠিক বিচার পেলাম না। দাদার মৃত্যুর পর বলা হয়েছিল, আমাকে চাকরি দেওয়া হবে। কিন্তু এখনও সেই নিয়ে কোনও নেতাই মুখ খোলেনি”।

শুক্রবার হামলার এক বছর পরেও শহিদ জওয়ানদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণের টাকা না দেওয়া নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষের মুখে পড়ে নমো সরকার। বাদ পড়া শহিদদের তালিকায় রয়েছে রোহিতাশ লাম্বাও। তাঁর পরিবারকে দেড় কোটি টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার। কিন্তু এক বছর পেরিয়ে গেলেও সেই টাকার মুখ দেখেননি বলে জানিয়েছে রোহিতাশের পরিবার।