১০ টাকা কেজিতে মিলছে চিকেন! কোথায়? জানতে হলে পড়ুন প্রবন্ধটি

0

শ্রেয়া মাজী, মহারাষ্ট্র: রব উঠেছে মুরগি থেকে নাকি ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। সেই কারণে মুরগির মাংস হোক বা ডিম সবেতেই অনীহা দেখা দিয়েছে খাদ্যপ্রেমীদের। খাদ্যপ্রেমীদের অনীহার কারণেই চিকেন ব্যবসায় পড়েছে ভাঁটা। সকলেই মুখ ফিরিয়েছেন মুরগির মাংস থেকে। সেই কারনেই এবার পুনেতে ১০ টাকা কিলোতে বিক্রি হচ্ছে মুরগির মাংস।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে গুজব ছড়ায়, মুরগি থেকে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। এরপর সকলেই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন মুরগির মাংস থেকে। তাতেই বিপুল ক্ষতির মুখে পড়েছে পোলট্রির ব্যবসা। ভুল নয়, এইকথা একেবারেই সত্যি যে ৮০-৯০ টাকা নয় বরং পুনেতে ১০-২০ টাকা কিলোতে বিক্রি হচ্ছে মুরগির মাংস।

পুনের এক পোলট্রি ফার্মের মালিক প্রমোদ হিঙ্গে জানিয়েছেন, “কয়েক সপ্তাহ আগে আমার প্রায় ১০ কোটি টাকার লোকসান হয়েছে। বাজারে একদম চিকেনের চাহিদা নেই। ফলে প্রান্তিক গ্রামে গাড়ি করে খুব কম দামে চিকেন বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি।” অ্যাসোশিয়েসনের প্রেসিডেন্ট বসন্ত কুমার শেট্টি জানিয়েছেন, ৭০০ কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে মহারাষ্ট্রের পোলট্রি চাষীরা।

চিকেনকে বেশিদিন স্টক করে রাখা যায় না । সেই কারণেই লোকসান হলেও ১০-২০ টাকা কিলোতে বিক্রি করতে হচ্ছে। যদিও ঘোষণা করা হয়েছে যে চিকেন থেকে করোনা ভাইরাস ছড়ায় না, তবুও কেউ ঝুঁকি নিতে নারাজ আম জনতা। পুনেতে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার পর মহারাষ্ট্রের পোলট্রি ব্রিডারস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, “এই ক্ষতির জন্য সরকার আমাদের কিছুটা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। আমরা জানি না কিভাবে ব্যাংকের ঋণ, বিদ্যুতের বিল ও মাসিক খরচ চালাব। কেন্দ্রের কাছেও ক্ষতিপূরণ চেয়ে অনুরোধ করা হবে।”

উল্লেখ্য, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) করোনা ভাইরাসকে মহামারী হিসাবে ঘোষণা করেছে। বিশ্বের ১১৪ টি দেশে করোনা তার থাবা বসিয়েছে। ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১ লক্ষ ৪০ হাজার মানুষ। বিশ্বে ৫০০০ জনের মৃত্যু হয়েছে যার মধ্যে ৩০০০ জন চিনের বাসিন্দা।