করোনার মোকাবিলা করতে গরিবদের মধ্যে ‘মোদী কিট’ বিতরণ করবে বিজেপি

0

নয়াদিল্লি: দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ক্রমশ বেড়ে চলেছে। যা দেখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশব্যাপী ২১ দিনের লকডাউন জারি করার কথা ঘোষণা করেছেন। ভারতে আজ লকডাউনের তৃতীয় দিন। লকডাউন চলাকালীন সাধারণ মানুষকে বেশ কিছু প্রতিকূল পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়েছে। কিন্তু সমাজের একটা অংশ এমনও আছে যারা এই লকডাউনের জেরে খেতে পাচ্ছেন না। টাকা-পয়সা কম থাকার কারণে দিন আনা দিন খাওয়া মজুররা ও গরিব মানুষরা এক বেলার খাবারও জোটাতে পারছেন না। এই বিষয়টিকে মাথায় রেখে এবার বিজেপি গরিবদের ‘মোদী কিট’ বিতরণ করবে। এই কিটে রেশনের পাশাপাশি নিত্য ব্যবহৃত দ্রব্যাদিও থাকবে।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, এই ‘মোদী কিটে’ ৫ কেজি আটা, ২ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, মশলা, চা পাতা, বিস্কুট, তেল ও সাবান থাকবে। লকডাউন চলাকালীন বিজেপি সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে তারা গরিব লোকেদের কাছে এই কিট পৌঁছে দেবে।

উল্লেখ্য, এর আগে কেন্দ্র সরকার গরিবদের জন্য ১ লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজের ঘোষণা করে। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বৃহস্পতিবার বলেছিলেন যে এই প্যাকেজের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনার দ্বারা লকডাউনে প্রভাবিত গরিব মানুষদের সাহায্য করবে।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন দেশের ৮০ কোটি গরিবের জন্য প্রতি মাসে ৬ কেজি অতিরিক্ত রেশন বিনামূল্যে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেন, এখনও অবধি ৫ কেজি গম বা চাল প্রতি গরিব ব্যক্তি পিছু সরবরাহ করা হয়। এবার থেকে ৫ কেজি রেশন অতিরিক্ত পাওয়া যাবে। যার অর্থ দেশের ৮০ কোটি গবির মানুষ আগামী জুন মাস অবধি ১০ কেজি সরকারি রেশন পাবেন।

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭২৪-এ পৌঁছেছে। সারা দেশে মোট ১৭ জন মানুষ এতে প্রাণ হারিয়েছেন, ৫০ জন এই ভাইরাসের আক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন। ভারতে লকডাউন জারি হওয়ার পরেও কিছু মানুষকে রাস্তাঘাটে দেখা যাচ্ছে। যদিও প্রথম দিনের তুলনায় মানুষজন কমই রাস্তায় বেরোচ্ছেন। কিন্তু এখনও অনেক মানুষ নিজেদের ঘরে থাকছেন না, বিনা কারণেই রাস্তায় বেরিয়ে পড়ছেন। কেন্দ্র এবং রাজ্যের সরকারেরা ক্রমাগত মানুষজনের কাছে ঘরে থাকার আপিল করে চলেছেন।