কোনও করোনা আক্রান্ত নেই, ১৫ এপ্রিল থেকে লকডাউন উঠে যাচ্ছে মেঘালয়ে

0

শিলং: দেশব্যাপী লকডাউন শেষ হওয়ার পরে ১৫ এপ্রিল থেকে মেঘালয়ের সমস্ত সরকারী অফিস কাজ শুরু করবে, রাজপথে বেসরকারী যান চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে এবং কৃষিকাজ পুনরায় চালু করা হবে। রাজ্য সরকার আজ এমনটাই জানিয়েছে। পাশাপাশি আরও জানিয়েছে, এই মাসের শেষ অবধি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

মেঘালয়, যেখানে এখনও পর্যন্ত কোনও করোনাভাইরাস সংক্রান্তের ঘটনা ঘটেনি, এটি প্রথম রাজ্য যা আংশিক লকডাউন তোলার ঘোষণা করেছে। অন্যরা ইঙ্গিত দিচ্ছে যে করোনাভাইরাসের দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণে লকডাউন অব্যাহত থাকতে পারে।

মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর একটি অফিসিয়াল বিবৃতিতে বলা হয়, “সমস্ত সরকারি দফতর ১৫ এপ্রিল থেকে পুরোদমে সব কর্মীদের নিয়ে কাজ করতে শুরু করবে। তবে স্কুল এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।”

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কৃষকদের জমিতে কাজ করার অনুমতি দেওয়া হবে এবং গ্রামীণ অঞ্চলের সাপ্তাহিক বাজারগুলি স্বাস্থ্য বিভাগ দ্বারা নির্ধারিত COVID-19 প্রোটোকলগুলি কঠোরভাবে মেনে চলা শুরু করবে। মহাত্মা গান্ধী জাতীয় গ্রামীণ কর্মসংস্থান গ্যারান্টি (MNREGA) কার্যক্রমগুলিও গ্রামগুলিতে পুনরায় চালু হতে দেওয়া হবে। বেসরকারী ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলি অবশ্য বন্ধ থাকবে।

মুখ্যমন্ত্রীর মজুরি হ্রাস ত্রাণ প্রকল্পের অধীনে, COVID-19 লকডাউন চলাকালীন বেকার থাকা সমস্ত দিনমজুর, দৈনিক শ্রমিক এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা প্রতি সপ্তাহে ৭০০ টাকা করে পাবে। আর্থিক সহায়তা সরাসরি যোগ্য ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে স্থানান্তরিত হবে।

বলা বাহুল্য, যেখানে গোটা দেশে ক্রমশ বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সেখানে উত্তর-পূর্ব ভারতে মোট ৩২ জন করোনা আক্রান্ত, যার মধ্যে ২৭ জনই আসামের। ইতিমধ্যে ভারতে মোট করোনা আক্রান্ত ৪৪২১ এবং মৃত ১১৪।