করোনায় ভারতীয় অর্থনীতিকে বাঁচাতে অর্থমন্ত্রককে বিশেষ উপদেশ দিল অ্যাসোচেম

0

নয়াদিল্লি : ইতিমধ্যেই এই করোনা ভাইরাসের জেরে গোটা বিশ্বের অর্থনীতিতে বিরাট ধস নেমেছে, যার প্রভাব থেকে বাঁচেনি ভারতবর্ষ। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের তরফ থেকে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও ভারতীয় অর্থনীতির এই পতন কি বাঁচানো সম্ভব। সেক্ষেত্রে একটি নয়া উপায় বার করল অ্যাসোসিয়েটেড চেম্বারস অফ কমার্স অফ ইন্ডিয়া, যা প্রচলিত ভাষায় অ্যাসোচেম নামে পরিচিত। তাদের দাবি, এই ধস থেকে বাঁচতে ভারতীয় অর্থনীতিতে অন্ততপক্ষে ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অন্তর্ভুক্তি প্রয়োজন।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণকে একটি সুপারিশ চিঠি লেখেন অ্যাসোচেম কর্তা ডঃ নিরঞ্জন হিরানান্দানি। এই চিঠিতে তিনি বেশ কিছু বিষয় সুপারিশ করেছেন। প্রথমত, অধিকাংশ দেশের অর্থনীতির জিডিপির থেকে ১০ শতাংশ এগিয়ে থাকতে গেলে, ভারতীয় অর্থনীতিতে অন্তত ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অন্তর্ভুক্তি করতে হবে, যা পরবর্তী ১২ থেকে ১৮ মাসে অন্তত ৩০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পৌছতে পারবে।

দ্বিতীয়ত, এই ২০০ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে অন্তত ৫০-১০০ বিলিয়ন ডলার ক্যাশ হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে আগামী তিন মাসের মধ্যে, যাতে দেশে বড় আকারে বেকারত্ব না বাড়ে।

আর তৃতীয়ত, অ্যাসোচেম উপদেশ দিয়েছে যাতে দেশজুড়ে আগামী তিন মাস সকল জিএসটি করের উপর ৫০ শতাংশ ছাড় এবং ফিসকালের জন্য ২৫ শতাংশ ছাড় দেওয়া হোক। এই বিষয়ে অ্যাসোচেম কর্তা লেখেন, “এই ফাইনাল জিএসটি ছয়টি ত্রৈমাসিক কিস্তিতে আগামী অক্টোবর মাস পর্যন্ত বিনা সুদে দেওয়া যাবে।”