লকডাউন ভাঙার শাস্তি, ১০ বিদেশিকে দিয়ে ৫০০ বার লেখানো হল ‘লকডাউন ভেঙে আমি অন্যায় করেছি’

0

উত্তরাখণ্ড: করোনা সংক্রমণ রুখতে লকডাউন সমগ্র দেশ। তবে এই লকডাউন অমান্য করছেন অনেকেই।  এমনকি যারা লকডাউন অমান্য করছেন তাঁদের শাস্তিও দেওয়া হয়েছে। তবে এবার লকডাউন অমান্য করায় উত্তারাখন্ডের পুলিশ অভিনব ভাবে শাস্তি দিল ১০ বিদেশিকে। এই ঘটনা ঘটেছে হৃষীকেশের তপোবন এলাকায়।

লকডাউন অমান্য করে ঋষিকেশে গঙ্গার তীরবর্তী এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন কিছু বিদেশি। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে টহল দিতে যায়। তারপরই লকডাউন অমান্য করার অপরাধে ১০ বিদেশিকে দিয়ে কাগজে লেখানো হয় ‘লকডাউন ভেঙে আমি অন্যায় করেছি, আমি ক্ষমাপ্রার্থী৷” তবে এখনেই শেষ নয় শুধু একবার নয় শাস্তি স্বরুপ কাগজে এই কথা তাঁদের দিয়ে ৫০০ বার লেখানো হয়। তেহরি গাঢ়ওয়াল জেলার অন্তর্ভুক্ত মুনি কী রেতি থানার পুলিশ ওই বিদেশিদের এই শাস্তি দেয়।

তপোবন পুলিশ চেকপোস্টের ইনচার্জ বিনোদ কুমার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, “পুলিশের কাছে আগে থেকেই খবর ছিল যে, লকডাউন ভেঙে ঋষিকেশের গঙ্গাবক্ষে ঘুরে বেড়াচ্ছেন কিছু বিদেশি। আর খবর পাওয়া মাত্রই শনিবারই আমরা ওই অঞ্চলে টহল দিতে যাই। দেখি ঠিকই ১০ জন বিদেশি আরাম খাচ্ছেন সেখানে বসে।” পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে বিদেশীরা ইউরোপ ইজরায়েল মেক্সিকো ও অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা। তাঁদের কাছ থেকে ঘুরে বেরানোর কারণ জানতে চাওয়া হলে তাঁর জানান “সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা অবধি লকডাউন অনেকটাই শিথিল থাকে। তাই আমরা এখানে এসেছি।”

পুলিশের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে প্রথমে তাঁরা ভুল স্বীকার করে মুচলেকা লিখতে অস্বীকার করেন। কিন্তু পুলিশ তাঁদের জানায় যে ভুল স্বীকার না করলে তাঁদের কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। পুলিশের এই কথা শুনে ভয়ে তাঁরা তাঁদের ভুল স্বীকার করে ৫০০ বার লেখেন ‘লকডাউন ভেঙে আমি অন্যায় করেছি, আমি ক্ষমাপ্রার্থী।” পুলিশ তাঁদের ছেড়ে দিলেও স্পষ্ট জানিয়েন দেন এর পর যদি তাঁরা লকডাউন অমান্য করেন তবে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।