লকডাউন আসলে নোটবন্দী ২.০: রাহুল গান্ধী

0

নয়াদিল্লি: ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা ধ্বসে গিয়েছে। জিডিপি যখন ক্রমশ নিন্মগামী তখন মূল্যবৃদ্ধিও হচ্ছে লাফিয়ে। এই পরিস্থিতিতে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ একগুচ্ছ পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করলেও বাস্তব রূপ পেতে তার যে সময় লাগছে তা বলাই বাহুল্য। দেশের এই অর্থনৈতিক মন্দা নিয়ে কেন্দ্র সরকারকে একাধিকবার আক্রমণ করেছেন কংগ্রেসের প্রাক্তন অধ্যক্ষ রাহুল গান্ধী।

শনিবার মোদী সরকারের উপর ফের নিশানা করে তিনি বলেন, “সরকার দেশের দরিদ্রদের সাহায্য না করে অর্থব্যবস্থাকে আরও নষ্ট করছে”। লকডাউনকে ‘নোটবন্দী ২.০’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। রাহুল গান্ধী ট্যুইট করে বলেন, “দরিদ্র এবং এমএসএমই-দের নগদ টাকা না দিয়ে সক্রিয়ভাবে আমাদের দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করছে”।

তাঁর বক্তব্য, মানুষের কাছে যদি নগদ টাকাই না থাকে তাহলে তাঁরা কেনাকাটা করবেন কিভাবে? আর যদি কেনাকাটাই না হয় তাহলে বাজারের অবস্থার উন্নতি হবে কি করে? ৬ মাসের উপরে দরিদ্র মানুষদের অ্যাকাউন্টে ৭,৫০০ টাকা দেওয়ার দাবী করেন তিনি। বলা বাহুল্য, লকডাউনকে কেন্দ্র সরকারের ব্যর্থতা বলে আগেই উল্লেখ করেছেন তিনি।

শুক্রবার একটি ট্যুইট করে তিনি বলেন, “ভারতে লকডাউন চূড়ান্তভাবে ব্যর্থ, তা প্রমাণ হয়ে গিয়েছে।” সেইসঙ্গে বেশ কয়েকটি দেশের লকডাউনের উদাহরণ দেন। সেইসব দেশে করোনা সংক্রমণ কমার সঙ্গে সঙ্গে এক এক করে আনলক করা শুরু হয়। কিন্তু ভারতের ক্ষেত্রে করোনা সংক্রমণ যখন প্রায় ছিল না বললেই চলে, তখন লকডাউন জারি করা হয়। আর যখন সংক্রমণের মাত্রা ক্রমশ বাড়ছে তখন জারি হয়ে গিয়েছে আনলক ১.০।