ভারতে ভ্যাকসিন তৈরি হলে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দেবে নয়াদিল্লি: বিদেশ সচিব

0

অরিত্রা দাশগুপ্ত, ঢাকা: ভারতে করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন প্রক্রিয়া অনেকদূর এগিয়ে গিয়েছে। অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের অ্যাডভান্সড র্ট্রায়াল চলছে সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার অধীনে। ভারতে ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু হলে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে ভারতের নিকটতম প্রতিবেশী বাংলাদেশকে দেওয়া হবে, বুধবার ঢাকায় সাংবাদিক বৈঠকে এমনটাই জানিয়েছেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

দুদিনের বাংলাদেশ সফরের দ্বিতীয় দিনে বুধবার ঢাকায় বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন এর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে স্রিংলা জানান, ভারত ভ্যাকসিন তৈরির ক্ষেত্রে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে আর অতীতের মতো করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঢাকাকে সমস্ত সহায়তা করবে ভারত। “ভ্যাকসিন আবিষ্কৃত হলে আমাদের বন্ধু সহযোগী এবং প্রতিবেশী দেশগুলোতে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে পাঠানো হবে। বাংলাদেশ আমাদের কাছে সবসময় অগ্রাধিকারের তালিকায় আছে। আগামী দিনে করোনার ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অগ্রাধিকার পাবে”, বলে জানিয়েছেন বিদেশ সচিব শ্রিংলা।

অন্যদিকে বাংলাদেশের বিদেশ সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে নয়াদিল্লিকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে করোনার ভ্যাকসিনের ট্রায়াল পার্টনার হওয়ার। ভারতের দিক থেকে ইতিবাচক ইঙ্গিত মিলবে বলেই আশা ঢাকার। ভারতে বর্তমানে তিনটি করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল চলছে। সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার আওতায় অক্সফোর্ড এস্ট্রোজেনেকার করোনার ভ্যাকসিন, আইসিএমআর ,ভারত বায়োটেক এর যৌথ উদ্যোগে কোভ্যাকসিন এবং জাইডাস ক্যাডিলার তৈরি করোনার ভ্যাকসিন। আশা করা যাচ্ছে ২০২০এর শেষ অথবা ২০২১ এর মধ্যেই ভারতে আসতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন।