অযোধ্যায় হতে চলা রামমন্দির উড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে পাক সন্ত্রাসবাদী মাসুদ আজহার

0

নয়াদিল্লি: বিশ্ব যখন করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছিল তখন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এবং তাদের নেতারা ভারতে আক্রমণ চালানোর জন্য নিয়োগের কাজে ব্যস্ত ছিল। মোস্ট ওয়ান্টেড সন্ত্রাসবাদী মৌলনা মাসুদ আজহার পাকিস্তানে অবাধ বিচরণের সময় অযোধ্যার রাম মন্দিরে হামলার ষড়যন্ত্র করছিল এই তথ্য আর গোপন নেই। সেই তথ্য এক সংবাদ মাধ্যম প্রকাশ করেছে। মাসুদ আজহার অযোধ্যার নির্মীয়মাণ রাম মন্দিরে হামলার ছক কষছে।

পাক সন্ত্রাসবাদী মাসুদ আজহার যাকে গত বছর আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা করে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা কাউন্সিল। মাসুদ আজহার হল ভারতের কাশ্মীরের পুলওয়ামা ও পাঠানকোট হামলার মত সবথেকে বড়বড় জঙ্গি হামালা মূল কাণ্ডারি। সেই আবারও ভারাওতে হামলার ছক কষছে। সম্প্রতি মাসুদ প্রকাশ্যে একটি বিবৃতি দিয়ে জানায়, রাম মন্দিরের নির্মাণকাজ বন্ধ করতে তার অনুগামীরা জীবন বিসর্জন দিতে প্রস্তুত। এই বিবৃতিতেই হামলার ইঙ্গিত রয়েছে বলেও মনে করা হচ্ছে। করোনাকে প্রতিহত করতে বিশ্ব লকডাউন হলেও পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদী কারখানায় কোনও লকডাউন ছিল না। বরং সন্ত্রাসবাদী ইউনিটগুলি দিল্লি এবং মুম্বাইকে ওড়ানোর ষড়যন্ত্রে ব্যস্ত ছিল।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত সন্ত্রাসবাদীরা লকডাউন চলাকালীন পাকিস্তানের বড় বড় শহরে তাদের সভা করার পাশাপাশি একাধিক ভারতবিরোধী ভিডিও এবং বিবৃতি প্রকাশ করেছিল। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই ঘটনাগুলি সম্পর্কে অজ্ঞতা প্রকাশ করতে পারেন, তবে এই বিশ্বাস করা কঠিন যে পাকিস্তান সেনাবাহিনী এই কার্যক্রম সম্পর্কে কিছুই জানত না। বর্তমানে পাকিস্তানে প্রায় ৪০ হাজার সন্ত্রাসবাদী রয়েছে, যার মধ্যে ১৬ জনকে জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসাবে ঘোষণা করেছে। পাকিস্তানে মাসুদ আজহারের সঙ্গে জঙ্গি নেটওয়ার্ক বাড়ানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে হাফিজ সইদও। গোটা বিশ্বে নিষিদ্ধ নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন হল জামাত-উদ-দওয়া, জইশ-ই-মহম্মদের সদস্যরা, এদেরই পরিচালনা করে মাসুদ আজহার ও হাফিজ সইদ।

প্রসঙ্গত, ৫ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যখন অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন, তখন মনে করা হয়েছিল যে এটি ভারতে একটি দিকের নতুন সূচনা করবে। কিন্তু পাকিস্তান এটি ভালো চোখে দেখেনি। ভূমিপুজোর সময় থেকেই পাকিস্তানে বসে হতে চলা রামমন্দিরে হামলার ছক কষে চলেছে মাসুদ আজহার। তিনি রাম মন্দির নির্মাণকে অবৈধ বলে হুমকি দেওয়ার সময় বলেন বাবরি মসজিদে নামাজ পড়তে চান। তিনি একটি বিবৃতি জারি করে বলেছিলেন যে তাঁর অনুসারীরাও এই নির্মাণ বন্ধ করতে প্রাণ দিতে প্রস্তুত। এই বিবৃতি রামমন্দিরে হামলার পরিকল্পনার সন্দেহকে আরও শক্ত করে তুলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here