ভারত-চীন বিবাদের মধ্যে সীমান্তের সুরক্ষাব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে উপত্যকা সফরে সেনাপ্রধান নারাভানে

0

শ্রীনগর : ভারতীয় সেনাপ্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাভানে বৃহস্পতিবার উপত্যকার নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে স্থানীয় সেনা কর্মকর্তাদের সাথে একাধিক বৈঠক করেছেন। সীমান্ত অঞ্চলে বিরাজমান সুরক্ষা সম্পর্কে প্রথম পর্যায়ের মূল্যায়নের জন্য তিনি নিয়ন্ত্রণ রেখার (LoC) পাশাপাশি কয়েকটি স্থানেও গিয়েছিলেন।

সন্ধ্যায় উপত্যকার দু’দিনের সফরে আসা জেনারেল নারাভানে রাজভবনে জম্মু-কাশ্মীরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহার সাথে সাক্ষাত করেন, অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক সুরক্ষার কার্যকর ব্যবস্থাপনার সাথে সম্পর্কিত বিশেষত অনুপ্রবেশের প্রচেষ্টা এবং সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডের আরও কার্যকরভাবে মোকাবিলা করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপগুলির প্রসঙ্গে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।

তাঁর সাথে ছিলেন লেঃ জেনারেল ওয়াই কে জোশী, আর্মি কমান্ডার, নর্দান কমান্ড এবং লেঃ জেনারেল বিএস রাজু, শ্রীনগর ভিত্তিক ১৫ কর্পসের জিওসি যারা চিনার কর্পস নামে পরিচিত। রাজভবনের এক মুখপাত্র এমনটাই জানিয়েছেন। প্রতিরক্ষা মুখপাত্রের মতে, কর্নেল রাজেশ কালিয়া, জেনারেল নারাভানে উপত্যকার উঁচু অঞ্চলে মোতায়েন করা সেনাদের সাথে কথা বলার সময় তাঁদের সুউচ্চ মনোবলের প্রশংসা করেছেন এবং পাকিস্তানের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের বিষয়ে তাদের প্রতিক্রিয়ার প্রশংসা করেছেন।

মুখপাত্র বলেছেন, “তিনি LoC জুড়ে কার্যকরভাবে দিনরাতের নজরদারি নিশ্চিত করতে প্রযুক্তির ব্যবহারের প্রশংসা করেন যা গত কয়েকদিন আগে POJK থেকে অনুপ্রবেশেকে ব্যর্থ করার জন্য অনেক সফল অভিযান চালিয়েছে। সেনাপ্রধান সীমান্তবর্তী অঞ্চলে বসবাসকারী বেসামরিক নাগরিক যারা পাক সেনাবাহিনী দ্বারা নিশানা করা যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের শিকার এবং মহামারীজনিত কারণে সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন তাদের সকল সম্ভাব্য সহায়তার উপর জোর দেন।”

সেনা কমান্ডার এবং পার্বত্য অঞ্চলে মোতায়েন করা জওয়ানদের সাথে একটি বৈঠকে জেনারেল নারাভানে পুনরায় উল্লেখ করেছিলেন যে এটি “কাশ্মীরের উন্নয়ন, শান্তি ও সমৃদ্ধির নতুন যুগ” এবং জম্মু-কাশ্মীরে শান্তি স্থাপনের জন্য তাদের উচ্চ মনোবল ও অবদানের জন্য তাদের প্রশংসা করেছেন।