গলছে সম্পর্কের বরফ? নতুন করে সীমান্তে সেনা মোতায়েন করবে না ভারত-চিন, সিদ্ধান্ত বৈঠকে

0

নয়াদিল্লি: ১৫ মার্চ গালওয়ানে ভারত-চিন সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যুর পর থেকেই দুই দেশের সম্পর্ক উত্তেজিত। বহুবার উত্তেজনা প্রশমনের চেষ্টা করা হলেও কোনও ফল মেলেনি। সীমান্তের পরিস্থিতি ক্রমেই যুদ্ধের দিকে এগিয়ে গিয়েছে। তবে আবারও সোমবার সামরিক পর্যায়ে বৈঠকে বসেছিল ভারত-চিন। সেই বৈঠকে দুই দেশ যৌথ ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নতুন করে কেউই আর সীমান্তে সেনা মোতায়েন করবে না।

সোমবার লাদাখে ষষ্ঠ পর্যায়ে বৈঠক বসেছিল। সেখানেই নয়াদিল্লি-বেজিং এক মত হয়েছে যে এলএসি-তে দুই পক্ষই স্থিতাবস্থা বজায় রাখবে। দু-দেশের সেনাবাহিনীর সিনিয়র কম্যান্ডারদের মধ্যে ১৪ ঘণ্টা ধরে ম্যারাথন বৈঠক হয়েছিল সোমবার। সীমান্তে চিন বারবারই আগ্রাসন দেখিয়েছে যার কারণেই সমস্যা বেড়েছে কমার বদলে। তবে ভারতও যে সূচাগ্র মেদিনী চিনকে ছাড়বে না তা খুব ভালো করেই বুঝিয়ে দিয়েছে। সংবাদ সংস্থা এআনআই সূত্রে খবর ছিল গত ২০ দিনে ভারতীয় সেনা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে ৬টি শৃঙ্গের দখল করেছে। জানা গিয়েছে সোমবারের বৈঠকে চিন দাবি করেছে চূশূলে কৌশলগত ভাবে সুবিধাজনক পাহাড় চুড়োগুলো ভারতীয় বাহিনী সরিয়ে নিতে হবে। তবে ভারত তাদের দাবি ছাড়েনি।

ভারতও চিনের কাছে দাবি করেছে লাল ফৌজকে ফাঁকা করে দিতে হবে প্যাংগং লেক বরাবর ফিঙ্গার ফোর থেকে ফিঙ্গার এইট পর্যন্ত এলাকা। তবে কেউই তাদের অবস্থান থেকে সরতে চায়নি বলেই খবর। তবে সীমান্তে নতুন করে আর উত্তেজনা চাইছে না দুই দেশই। তাই সীমান্তে যাতে স্থিতাবস্থা বজায় থাকে সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সম্মত হয়েছে ভারত-চিন। এর পরেই বৈঠকে বাকি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। তবে শীতকালে লাদজাহে যদি খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয় তার জন্য প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনা।