নেতাদেরদের খুন করতে মরিয়া জঙ্গিরা, ফের কাশ্মীরে খুন বিজেপি নেতা

0

শ্রীনগর: বুদগামে জেলার খাগ ব্লকের ব্লক উন্নয়ন কাউন্সিলের (বিডিসি) চেয়ারম্যানকে তাঁর বাসভবনের কাছে বুধবার সন্ধ্যায় গুলিবিদ্ধ হত্যা করা হয়েছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে। এই কাজ করেছে জঙ্গিরা। পুলিশ জানিয়েছে, দলওয়াচ খাগের বাসিন্দা ভূপিন্দর সিংকে কাছের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল যেখানে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে।

পুলিশ আরও জানিয়েছে বিডিসি ভূপিন্দর সিং সেই এলাকার একজন সক্রিয় বিজেপি নেতা ছিলানে। আরও জানানো হয়েছে, তাঁর পিএসও ও “পুলিশকে কোনও তথ্য না দিয়ে” তাঁর গ্রামে চলে গিয়েছেন। জম্মু-কাশ্মির পুলিশ জানিয়েছে যে রাত ৮ টার দিকে সন্ত্রাসীবাদীরা খাগের দলওয়াচ এলাকায় একটি বিডিসি চেয়ারম্যানকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছিল। লেঃ গভঃ মনোজ সিনহা এই হত্যার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, “এই জঘন্য কাজটি ভয় ছড়িয়েছে এবং শান্তি ও অগ্রগতির পরিবেশকে বিকৃত করার একটি প্রচেষ্টা।”

সক্রিয় রাজনৈতিক দলের নেতারাও এই হত্যার নিন্দা করেছেন। বিজেপি মুখপাত্র আলতাফ ঠাকুর বলেছেন, “বিজেপি এই জাতীয় বর্বরতা ও কাপুরুষোচিত কাজের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।” এনসির সহ-সভাপতি ওমর আবদুল্লাহ টুইট করেছেন, “বিডিসির কাউন্সিলর ভূপিন্দর সিংহ হত্যার কথা শুনে খুব দুঃখিত। মূলধারার তৃণমূলের রাজনৈতিক কর্মীরা জঙ্গিদের সহজ লক্ষ্য….” বুধবারের ঘটনাটি চলতি বছরে কাশ্মীরে একজন সরপঞ্চের হত্যার তৃতীয় মারাত্মক ঘটনা। কংগ্রেসের সাথে যুক্ত সরপঞ্চ অজয় পণ্ডিতাকে জুন মাসে অনন্তনাগে গুলি করা হয়েছিল, আর আগস্টে কাজীগুন্ডে বিজেপির সাথে যুক্ত সরপঞ্চ সাজাদ আহমদ খানদাই নিহত হন জঙ্গিদের গুলিতে। এমনকি এক বিজেপি নেতা ও তাঁর পরিবারকে তাঁর বাড়ির কাছে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসবাদীরা।

বার বার কাশ্মীরের বিজেপি নেতারা জঙ্গিদের আক্রমনের শিকার হচ্ছেন ও প্রাণ হারাচ্ছেন। নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে তাই অনেক বিজেপি নেতাই দল ছেড়েছেন। ৩৭০ ধারা বাতিল করার পরেই উপত্যকার নেতাদের প্রাণ বাঁচানো দায় হয়ে গিয়েছে। ঠিক এই কারণে জুলাইয়ে, উপত্যকার নগর স্থানীয় সংস্থা এবং পঞ্চায়েতি রাজ প্রতিষ্ঠানের ১১৩ জন নির্বাচিত প্রতিনিধিদের জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন সুরক্ষা দিয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here