অপেক্ষা শুধু সময়ের: মোদীর হাত ধরেই ১৬ জানুয়ারী দেশে শুরু হবে করোনার টিকাকরণ কর্মসূচী

0

নয়াদিল্লি: গোটা ২০২০ ধরে ভারতবাসীকে ভয়ে টথস্থ করে রাখা মারণ ভাইরাস করোনাকে দমন করার টিকা এসে গিয়েছে ভারতে। ১৬ তারিখ থেকেই দেশ জুড়ে শুরু হবে করোনার টিকাকরণ। এই খবর নিশ্চিত করেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। টিকাকরোনার জন্য বাকি মাত্র আর দুটি দিন তাই দেশ জুড়ে পস্তুতি তুঙ্গে। এই টিকাকরণ শুরু হতে চলেছে প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরেই।

১৬ জানুয়ারি টিকাকরণ শুরুর দিনেই প্রধানমন্ত্রী ‘কো-উইন’ অ‌্যাপের উদ্বোধন করবেন। করোনার টিকাকরণ শুরু ও অ‌্যাপেরও আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন সবটাই হবে ভারচুয়ালি। দেশের টিকাকরণ কর্মসূচি নিয়ে সোমবার রাজ্যের মুখ‌্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভারচুয়াল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘সারা পৃথিবীর তুলনায় ভারতের পরিস্থিতি অনেক ভাল। এখন দু’টি ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই দু’টি টিকাই বিশ্বের যে কোনও টিকার তুলনায় বেশি কার্যকরী। আরও টিকা অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। কিন্তু টিকা নিয়ে অপপ্রচার আটকাতে হবে। মানুষকে টিকা নেওয়ার পরও বিধি মেনে চলতে হবে।” উল্লেখ্য, কয়েদিন আগেই ডিজিসিআই সম্মতি দিয়েছে ভারত বায়োটেক ও সিরাম ইন্সিটিউটের তৈরি কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ডে প্রয়োগের ক্ষেত্রে। এই দুটি ভ্যাকসিন ১০০ শতাংশ নিরাপদ এবং এই টিকার প্রয়োগে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হবে না বলেই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা ও দিল্লির মতো রাজ্যের কয়েকটি নির্বাচিত হাসপাতালগুলিকে প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। দেশের বৃহত্তম কোভিড হাসপাতালগুলির মধ্যে একটি, দিল্লির লোকনায়ক জয় প্রকাশ নারায়ণ হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মী ও ফ্রন্টলাইন কর্মীরা প্রথমে ভ্যাকসিন পাবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন অংশ নেবেন। ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে গিয়েছে করোনার ভ্যাকসিন। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে করোনার ভ্যাকসিন প্রথমে দেওয়া হবে সামনের সারিতে থাকা যোদ্ধাদের। এখন শুধু অপেক্ষ সময়ের।