প্রকাশ্যে প্যান্টের জিপ খোলা যৌন নিগ্রহের আওতায় পড়ে না, ফের বিতর্কিত রায় বম্বে হাইকোর্টের

0

মুম্বই: কয়েকদিন আগেই “ত্বকের সঙ্গে ত্বকের স্পর্শ” মামলায় যৌন নির্যাতন নিয়ে বিতর্কিত রায় দিয়েছিল বম্বে হাইকোর্টের নাগপুর বেঞ্চের বিচারপতি পুষ্প গান্ডিওয়ালা। এবার “প্রকাশ্যে প্যান্টের জিপ খোলা” নিয়ে রায় দিয়ে বিতর্কে জড়ালেন তিনি। ওই বিচারপতি জানিয়েছেন, জোর করে কোনো মহিলার হাত ধরা বা প্রকাশ্যে প্যান্টের জিপ খোলা যৌন নিগ্রহের মধ্যে পড়ে না। যা নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

বিচারপতি পুষ্পা গান্ডিওয়ালা বলেন, জোর করে কোনও মেয়ের হাত ধরা বা প্রকাশ্যে প্যান্টের জিপ খুলে রাখা অথবা যৌনাঙ্গ প্রদর্শন করাও যৌন নির্যাতনের মধ্যে পড়ে না। বেঞ্চ জানিয়েছে, ভারতীয় দন্ডবিধির ৩৫৪ ধারায় যৌন হেনস্থার বিষয়টি পড়ে, কিন্তু যৌন নির্যাতন নয়। কারণ, সরাসরি শরীরী সংস্পর্শ হয়নি। বিচারপতি জানিয়েছেন ২০১২ সালের পকসো আইনের আওতায় এই রায়।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই বম্বে হাইকোর্টের নাগপুর বেঞ্চের এই বিচারপতি রায় দিয়েছিলেন – পো‌শাকের উপর দিয়ে নাবালিকার স্তনে হাত দেওয়া যৌন নির্যাতনের আওতায় পড়ে না। কারণ এক্ষেত্রে ত্বকের সাথে ত্বকের সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই। বিচারপতি জানান, পোশাক খুললে বা পোশাকের ভেতর দিয়ে আপত্তিজনকভাবে হাত দিলে তবেই সেটা যৌন নির্যাতন। পকসো আইনের ৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী এই রায় দেওয়া হয়েছে।

এই রায়ের পর দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় ওঠে। প্রশ্ন ওঠে নাবালিকা সুরক্ষা নিয়েও। গত বুধবার শীর্ষ আদালত এই রায়ে স্থগিতাদেশ দেয়। এমনকি এই রায়কে অত্যন্ত ‘বিরক্তিজনক’ বলেও ব্যাখ্যা করা হয়।