দলবদলাতেই নেতাদের সম্পত্তি বৃদ্ধি প্রায় ৪০ শতাংশ, অধিকাংশের গন্তব্যস্থল বিজেপি

0

নয়াদিল্লী : দলবদলাতেই ফুলে ফেঁপে উঠেছে দলবদলুদের সম্পত্তি। একলাফে প্রায় ৪০ শতাংশ। সমীক্ষা সংস্থা ‘অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস’ (এডিআর)-এর সাম্প্রতিক সমীক্ষায় এই চাঞ্চল্যকর তথ্যই উঠে এসেছে। রিপোর্ট বলছে, একদলের টিকিটে ভোটে জিতে মাঝপথে দলবদলে করা দলত্যাগী সাংসদ – বিধায়কদের গড় সম্পত্তি বেড়েছে ৩৯ শতাংশ। তা সত্ত্বেও তাদের জনপ্রিয়তায় ভাঁটা পড়েনি। উল্টে পরের নির্বাচনে পুননির্বাচিতও হয়েছেন অনেকেই।

রিপোর্ট বলছে, দলছুট জনপ্রতিনিধিদের এই সম্পত্তি বৃদ্ধি পেয়েছে শেষ পাঁচ বছরে। ২০১৬ থেকে মোট ৪৪৩ জন বিধায়ক – সাংসদ দল ছেড়েছেন। এই তালিকার শীর্ষে রয়েছে কংগ্রেস। শেষ পাঁচ বছরে ৪২ শতাংশ কংগ্রেসী নেতাই দল ছেড়েছেন। সেখানে বিজেপির দলছুট বিধায়কের সংখ্যা মাত্র ৪.৪ শতাংশ। দলত্যাগী বিধায়কদের ৪৫ শতাংশের নাম লিখিয়েছেন বিজেপি’তে। আর এই দলবদল করতেই শিকে ছিঁড়েছে তাদের। হু হু করে বেড়ছে সম্পত্তি।

এই দলছুট বিধায়কদের অধিকাংশই কর্নাটক, মণিপুর, গোয়া, অরুণাচল প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র-সহ বিভিন্ন রাজ্যের। এই তালিকায় রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের নামও। পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনের প্রাক্কালে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বেশ কিছু বিধায়ক বিরোধী শিবির বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন। তবে সারা দেশের মধ্যে দলবদল নেতাদের তালিকায় সবাই উপরে কংগ্রেস। এমনকি এই দলবদলের ঠেলায় মধ্যপ্রদেশ, কর্নাটকের পাশাপাশি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুদুচেরিতে কংগ্রেস সরকারের পতনও হয়েছে।

রিপোর্ট বলছে, দলত্যাগীদের তালিকায় ৪০৫ জন বিধায়ক, ১২ জন লোকসভার সাংসদ এবং ১৭ জন রাজ্যসভা সাংসদ রয়েছেন বলে জানাচ্ছে এডিআর রিপোর্ট। ১২ জন লোকসভা সাংসদের মধ্যে অবশ্য বিজেপি-র ৫ জন। অন্যদিকে, রাজ্যসভার দলত্যাগীদের মধ্যে ৭ জন কংগ্রেসের।