খর্ব হলে দিল্লী সরকারের প্রশাসনিক ক্ষমতা, রাজ্যসভায় পাস বিতর্কিত দিল্লী বিল

0

বিরোধী আপত্তি উড়িয়ে বুধবার রাজ্যসভায় পাস হল এনসিটি (সংশোধনী) বিল ২০২১। ফলে, নির্বাচিত সরকারের হাত থেকে দিল্লির যাবতীয় প্রশাসনিক ক্ষমতা হস্তান্তর হল লেফটেন্যান্ট গভর্নরের হাতে। কেন্দ্রের অনড় মনোভাবে সংসদের উচ্চকক্ষে এই বিল পাসের ফলে ধাক্কা খেল কেজরিওয়াল সরকার। এনসিটি বিল পাসে কেন্দ্রের এই মনোভাবের তীব্র বিরোধিতা করেছে আম আদমি পার্টি। গত ২২ মার্চ লোকসভায় পাস হয়েছিল এনসিটি বিল। মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের প্রতিক্রিয়া, “গণতন্ত্রের দুঃখজনক দিন আজ। কিন্তু আমরা লড়াই চালিয়ে যাব। বাধা এলেও কাজ করে যাব।” এদিন, এনসিটি বিলের উপর আলোচনায় অংশ নিতে তড়িঘড়ি দিল্লি ছুটে আসেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদরা। নির্বাচনের কাজে ব‌্যস্ত থাকায় অধিবেশনে নিয়মিত যোগ দিতে পারছেন না তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদরা। তাই আপাতত রাজ্যসভায় বিল নিয়ে আলোচনা স্থগিত রাখার দাবি জানিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। গত মঙ্গলবার রাজ‌্যসভার চেয়ারম‌্যান তথা উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডুকে চিঠি লিখেছিলেন রাজ্যসভায় তৃণমূল কংগ্রেস দলনেতা ডেরেক ও’ব্রায়েন। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। মঙ্গলবারই রাজ‌্যসভায় পেশ করা হয় এনসিটি (সংশোধনী) বিল, ২০২১। এই বিলের প্রতিবাদে নৈতিক সমর্থন জানিয়ে দিল্লির মুখ‌্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে আগেই চিঠি দিয়েছিলেন বাংলার মুখ‌্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ‌্যায়।

মঙ্গলবার এনসিটি বিলের প্রতিবাদে রাজ‌্যসভায় শোরগোল বাধান বিরোধী দলের সাংসদরা। ফলে বারবার মুলতবি হয় অধিবেশন। বুধবার অধিবেশনের শুরু থেকে বিল পাসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান আপ, কংগ্রেস এবং সমাজবাদী পার্টির সাংসদরা। আরও একবার ‘ত্রুটিপূর্ণ’ এই বিলকে সংসদের স্থায়ী কমিটিতে পাঠানোর দাবি জানান বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে, সমাজবাদী পার্টি সাংসদ বিশ্বম্ভর প্রসাদ নিষাদরা। কিন্তু বিরোধী আপত্তি উড়িয়ে রাতেই রাজ্যসভায় পাস হয় এনসিটি বিল। প্রতিবাদে ওয়াক আউট করে কংগ্রেস, বিজেডি-সহ রাজনৈতিক দলগুলি। কেন্দ্রকে আক্রমণ করে আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং বলেন, “দিল্লিতে পর পর দু’বার বিধানসভায় হেরেছে বিজেপি। তারই বদলা নিতে এই বিল পাস হল।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here