১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সকলেই পাবেন বিনামূল্যে করোনার টিকা 

0

গুয়াহাটি: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ইতিমধ্যে আছড়ে পড়ছে দেশে এবং এই ঢেউয়ের দ্রাপটে মানব জাতি সম্পূর্ণ নাজেহাল। করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ কে রুখতে ভ্যাকসিন কেই এখন একমাত্র হাতিয়ার করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ঠিক এই সময় যখন ভ্যাকসিনের দাম নিয়ে চলছে চিন্তা দেশের একটা বড়ো অংশে আর ঠিক সেই সময় অসম সরকার নিল এক বড়ো সিদ্ধান্ত। অসম সরকার ঘোষণা করলো ১৮ থেকে ৪৫ বছর বয়সী সকলকে টিকা দেওয়া হবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

এই টিকা করণ প্রসঙ্গে অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বকর্মা ঘোষণা করেছেন, ‘১৮ থেকে ৪৫ বছর বয়সী সকলকেই বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেবে অসম সরকার।অসম আরোগ্য নিধিতে গত বছর তহবিল সংগ্রহ করা হয়।সেটাই কাজে লাগানো হবে এখন।ভারত বায়োটেককে ১ কোটি ডোজের বরাত দিয়েছি’। উল্লেখ্য অধিকাংশ প্রস্তুত কারণ সংস্থা আশা করছেন যে বাজারে যখন করোনা টিকা পাওয়া যাবে তখন ডোজ প্রতি দাম হবে প্রায় ৭০০-১০০০ টাকা। তবে সরকারি ক্ষেত্রে অবশ্য ভ্যাকসিন পিছু ডোজে ব মিলবে ২৫০ টাকা। এই প্রসঙ্গে সেরাম ইনস্টিটিউটের CEO আদর পুনাওয়ালা জানিয়েছিলেন  বাজারে কভিশিল্ড ভ্যাকসিনের দাম পড়বে প্রায় ১০০০ টাকা। একই ভাবে রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি আমদানি করছে ডাঃ রেড্ডিস। তারা মনে করছেন ৭৫০ টাকায় রুশ ভ্যাকসিন বাজারে মিলতে পারে।

যদিও এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।বাজারে ভ্যাকসিনের দাম কি হয়ে পারে সে বিষয়ে সরকারের উপরই নির্ভর করছেন অনেক প্রস্তুত কারক সংস্থা। প্রসঙ্গত এতদিন সরকারি হাসপাতালে ভ্যাকসিনের জন্য প্রতি ডোজ বাবদ দিতে হতো ২৫০ টা এবং সরকারি হাসপাতালে তা মিলত সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। তবে এবার ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা নিতে হলে ভ্যাকসিন বাবদ দিতে হবে ৩-৪ গুন টাকা। গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন ‘ সব চেয়ে সস্তা ভ্যাকসিন ভারতে। সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে’। ভ্যাকসিন এবার বিক্রি করা যাবে খোলা বাজারে। প্রস্তুত কারক সংস্থা ৫০% ভ্যাকসিন খোলা বাজারে বিক্রি করতে পারবেন।এছাড়াও তারা সরাসরি রাজ্য কে সরবরাহ করতে পারবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here