কোথায় পর্যাপ্ত টিকা? ১ মে থেকে প্রাপ্ত বয়স্কদের টিকাকরণ শুরু অসম্ভব বলে দাবি রাজ্যগুলির

0

নয়াদিল্লি: ১ মে অর্থাৎ আগামীকাল থেকে ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সী সকলকে টিকা দেওয়া হবে, এমনটাই ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র সরকার। তার জন্য প্রয়োজন বিপুল পরিমাণে টিকার। গোটা দেশ রয়েছে করোনার গ্রাসের নিশানায়। রোজই বাড়ছে দ্রুত গতিতে আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যা। সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালেও পাওয়া যাবে এই টিকা। কিন্তু বিপত্তি অন্য জায়গায়। দেশের বিভিন্ন রাজ্যের হাসপাতাল জানিয়ে দিচ্ছে যে, তাদের হাতে পর্যাপ্ত টিকা নেই। কিভাবে শুরু হবে টিকাকরণ? সেই নিয়ে শুরু হয়েছে দ্বন্দ্ব।

দিল্লি, পাঞ্জাব, মহারাষ্ট্র, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ, কেরলের মতো রাজ্যগুলি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, এখনই এত লোকের টিকাকরণ শুরু করা সম্ভব না। বিজেপি শাসিত মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান জানিয়েছেন, ১ মে থেকে ওই বয়সসীমার মানুষের জন্য টিককরণ শুরু করা সম্ভব নয়। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের কথায় দেন, এখনই ১৮-৪৪ বছর বয়সিদের জন্য টিকাকরণ শুরু সম্ভব নয়। টিকা প্রস্তুত কারক সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা মহারাষ্ট্রকে ৩ লক্ষ ডোজ টিকা সরবরাহ করবে। বেসরকারি ক্ষেত্রে কোভিশিল্ড টিকার একটি ডোজের দাম ৬০০টাকা পড়বে। আর রাজ্য সরকারের অধীনে যে হাসপাতাল গুলি আছে সেখানে এই টিকার দাম পড়বে ৪০০ টাকা।

বুধবার ২৮ এপ্রিল কো-উইন পোর্টাল ও অ্যাপ খুলে দেওয়া হয় টিকার জন্য নাম নথিভুক্ত করানোর কথাও বলা হয়েছিল। প্রায় ১ কোটি ৩৩ লক্ষ মানুষ নাম লিখিয়েছেন। সেই সংখ্যা আরও বাড়বে। কিন্তু পরিকাঠামো নেই সেই বিপুল পরিমানের টিকার মজুতের। সেই কারণেই বেসরকারি হাসপাতালের বেশির ভাগ জানিয়ে দিয়েছে সরকারি সহযোগিতা না পেলে সম্ভব নয় টিকাকরণ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here