প্রাক্তন কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রেফতারের প্রস্তুতি নিচ্ছে সিবিআই

0

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: চিদাম্বরম, শিবকুমারের পর এবার উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াত৷ আরও এক কংগ্রেস নেতাকে গ্রেফতার করতে চলেছে সিবিআই৷ সুত্রের খবর, উত্তরাখণ্ডের বিধায়ক কেনা-বেচা সংক্রান্ত স্টিং মামলায় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াতকে গ্রেপ্তার করতে পারে সিবিআই।

মঙ্গলবার নৈনিতাল হাইকোর্টে সিবিআইয়ের মাধ্যমে একটি সংশোধনী আবেদন করা হয়েছে যাতে উল্লেখ করা হয়েছে যে, এই মামলায় সিবিআইয়ের প্রাথমিক তদন্ত শেষ হয়েছে এবং এখন হরিশ রাওয়াতকে গ্রেপ্তার করতে চায়। সিবিআইয়ের আবেদন হাইকোর্ট গ্রহণ করেছে, এর পরে রাওয়াতকে গ্রেপ্তার যে কোনও সময় পড়তে পারে।

কংগ্রেস নেতাদের জন্য চরম খারাপ দিন চলছে। কোথাও কোথাও কংগ্রেস নেতাদের বিরুদ্ধে আইনি অভিযোগ কঠোর করা হচ্ছে। মঙ্গলবার পি চিদাম্বরম এবং এখন কর্ণাটকের শক্তিশালী কংগ্রেস নেতা ডি কে শিবকুমারের গ্রেপ্তারের পর উত্তরাখণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াতও গ্রেপ্তারের হুমকির মধ্যে রয়েছেন। এফআইআর নথিভুক্ত করে যে কোনও সময় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করতে পারে সিবিআই।

২০১৭ সালে ঘোড়ার ব্যবসায়ের ঘটনা
২০১৭ সালে তত্কালীন উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হরিশ রাওয়াত কর্তৃক বিধায়কদের হর্স ট্রেডিংয়ের বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছিল। যার পরে উত্তরাখণ্ডে কংগ্রেস সরকার ক্ষমতাচ্যূত হয় ৷ সরকার পতনের পরে রাজ্যপালের সুপারিশ নিয়ে হরিশ রাওয়াতের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্ত শুরু হয়।
সিবিআই হরিশ রাওয়াতকে গ্রেপ্তারের প্রস্তুতি নিচ্ছিল৷ কিন্তু এরই মধ্যে রাওয়াত স্ট্রিং অপারেশনকে ভুয়ো বলে নৈনিতাল হাইকোর্টে আশ্রয় নিয়েছিল এবং তার গ্রেফতারে স্থগিতাদেশ এবং সিবিআই তদন্ত শেষ করার দাবি জানিয়েছিল। মামলা শুনেই নৈনিতাল হাইকোর্টের একক বেঞ্চ হরিশ রাওয়াতকে সিবিআই তদন্তে সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়েছিল।

হাইকোর্ট গ্রেপ্তার নিষিদ্ধ
হরিশ রাওয়াতকে গ্রেপ্তার না করার জন্য সিবিআইকে নির্দেশও দিয়েছিল হাইকোর্ট। এ ছাড়া সিবিআই আদেশ করেছিল যে, রাওয়াতকে গ্রেপ্তারের প্রয়োজন হলে সিবিআইকে আগে হাইকোর্টের একক বেঞ্চকে জানিয়ে দেবে৷ তার পর সিবিআই মামলাটি তদন্ত করছে।

এছাড়াও, স্টিং মামলায় ১৫ জুন, ২০১৬-এর মন্ত্রিসভা বৈঠকে হরিশ রাওয়াতের বিরুদ্ধে চলা সিবিআই তদন্তটি সরিয়ে নিয়ে এসআইটি-র সঙ্গে তদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল৷ যেটি হারক সিং রাওয়াত নৈনিতাল হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন যে, গভর্নর যদি কোনও মামলায় থাকতেন সিবিআই একবার তদন্তের পরামর্শ দিলে তা সরানো যায় না।

১৫ জুন রাজ্য সরকার এক বৈঠকে হরিশ রাওয়াতের বিরুদ্ধে চলমান সিবিআই তদন্তকে সরিয়ে দেওয়ার সুপারিশ করেছিল, যা নিয়ম বিরোধী, পাশাপাশি হারাক সিং রাওয়াত হরিশ রাওয়াতের বিরুদ্ধে এফআইআর নথিভুক্ত করার দাবি জানিয়েছিলেন। যার পরে মামলাটি সিবিআইয়ের আদালতে ছিল এবং সিবিআই এই মামলায় ঘোড়া ব্যবসায়ের বিষয়টি তদন্ত করছে। এখন প্রায় দেড় বছর পর সিবিআই তদন্ত শেষ করে আদালতে তার প্রতিবেদন উপস্থাপন করেছে। এখন মামলার শুনানি হবে ২০ সেপ্টেম্বর।