খেয়াল করে দেখেছেন প্রত্যেকে শতাব্দীর ‘২০ সালেই কেন বারেবারে ফিরে আসে মহামারী? জানুন সেই ব্যাখ্যা

0

করোনা করোনা আর করোনা। সমগ্র বিশ্ব এখন কাঁপছে করোনার আতঙ্কে। চিনকে ছাপিয়ে এখন ইতালি মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছে। কিন্তু খেয়াল করে দেখেছেন কেন প্রত্যেক শতাব্দীর ‘২০ সালেই বারেবারে ফিরে আসে মহামারী। এটা কি শুধুই কাকতালীয় ব্যপার নাকি কোনও ব্যাখ্যা রয়েছে এই পিছনে। এর উত্তর আজও সকলের কাছে অজানা।

এই শতাব্দীতে মহামারী হিসাবে ফিরে এসেছে করোনা। বিশ্বজুড়ে করনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৫ হাজার ৪১৮ জনের। তিন লক্ষ ৫৩ হাজার ৬৮১ জন করোনার শিকার। যেন এক মৃত্যু মিছিল চলছে বিশ্বজুড়ে। বিশ্ব জোড়া যে সংকটময় পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তাকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO ‘মহামারী’ হিসাবে আখ্যা দিয়েছে। তবে এটাই কিন্তু প্রথম নয় আগেও প্রতি শতাব্দীর ২০ সালে ভয়াবহ সব মহামারী প্রান কেড়েছিল বহু মানুষের। ২০২০-এর আগে ১৭২০ সালে ফ্রান্সে হানা দিয়েছিল ‘প্লেগ’, ১৮২০ সালে ‘কলেরা’, ১৯২০ সালে ‘স্প্যানিস ফ্লু’ আর ২০২০ সালে আবারও মহামারী হয়ে ফিরে এসেছে ‘করোনা ভাইরাস’। প্রতি শতাব্দীর ভয়াবহ মহামারী প্রান কেড়েছে লক্ষাধিক মানুষের।

তবে প্রতি শতাব্দীর মহামারীর মধ্যে ‘স্প্যানিস ফ্লু’-এর হানায় বিশ্ব জুড়ে প্রায় ১ কোটি ৭০ লক্ষ মানুষ প্রান হারিয়েছিল যা এখন পর্যন্ত সর্বাধিক। যদিও এখন বিজ্ঞান অনেক উন্নত করোনাকে হয়ত রুখে দেওয়া সম্ভব। কিন্তু খেয়াল করে দেখুন তো কেন ১০০ বছর পর পর বিশ্বে ফিরে আসে মহামারী আর প্রান কাড়ে লক্ষাধিক মানুষের।

সঠিক ব্যাখ্যা আছে কি? উত্তর রয়েছে কি কারও কাছে?

প্রকৃতির নিয়ম নাকি সবটাই কাকতালীয় ঘটনা? না, এর উত্তর আজও সকলের অজানা কেন প্রতি ১০০ বছর পর পর বিশ্বে মানুষের প্রান কাড়তে হাজির হয় মহামারী। পৃথিবীতে মাঝে মাঝে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যার ব্যাখ্যা কোথাও কারও কাছেই থাকে না। ঠিক এটাও তারই মধ্যে একটা ঘটনা। যার উত্তর বা ব্যাখ্যা কোনও টাই মানুষের কাছে জানা নেই।