করোনার প্রতিষেধক তৈরি করল বিশ্বের অন্যতম সিগারেট প্রস্তুতকারক সংস্থা

0

লন্ডন: “ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর”, এই বিজ্ঞাপন সকলেরই চেনা। সিনেমা হলের বিজ্ঞাপন থেকে শুরু করে খোদ সিগারেটের প্যাকেটে এর অপকারিতা সম্পর্কে জনস্বার্থে প্রচার করা হয়। কিন্তু পরোয়ানা থাকা সত্ত্বেও মানুষ সিগারেট কেনে, দোকানে সিগারেট বিক্রি হয় এবং কোম্পানিগুলি সিগারেট তৈরিও করে। তবে এবার জনস্বার্থে করোনার টীকা আবিষ্কার করে ফেলেছে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তর সিগারেট প্রস্তুতকারক সংস্থা। শুনতে অবাক লাগলেও এই ঘটনা সত্যি।

লন্ডনের ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির পক্ষ থেকে এমনটাই দাবী করেছে। বর্তমানে সমগ্র বিশ্বের সবচেয়ে বড় অসুখ হল করোনা সংক্রমণ। এই মারণ ভাইরাসের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করার জন্য প্রতিষেধক আবিষ্কারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বিশ্বের তাবড় তাবড় বিজ্ঞানীরা। এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম সিগারেট প্রস্তুতকারক সংস্থা ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে তাঁদের ল্যাবরেটরিতে করোনার প্রতিষেধক তৈরি হয়ে গিয়েছে। এবার মানুষের শরীরে এই প্রতিষেধক পরীক্ষা করতে চলেছেন তাঁরা।

বলা বাহুল্য, একাধিক সূত্র থেকে উঠে আসছে যে ধূমপান করলে করোনার সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বা ব্যাট-এর পক্ষ থেকেও সেই কথা বলা হচ্ছে। ব্যাট জানিয়েছে, “নোভেল করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক বা ‘অ্যান্টিজেন’-টিকে তামাক গাছের মধ্যে স্থাপন করা হবে। এরপর তামাক গাছগুলি কাটার পর অ্যান্টিজেনগুলিকে শোধিত করা হবে”।

যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার করোনার প্রতিষেধকের তালিকায় ব্যাটের প্রস্তুত করা প্রতিষেধকের কোনও উল্লেখ নেই। ওই তালিকায় এখনও পর্যন্ত মোট ১১০ টি সম্ভাব্য প্রতিষেধকের উল্লেখ রয়েছে। বিজ্ঞানীরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে আগামি দু-বছরের আগে করোনার সঠিক প্রতিষেধক পাওয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here