রাজ্যের আগামী পুরভোটে গোহারান হারবে তৃণমূল: মদন মিত্র

0

কলকাতা: আর মাত্র কয়েক মাসের অপেক্ষা। তারপরেই রাজ্যের প্রায় শতাধিক পুরসভায় অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। আর সেই নির্বাচনে গো-হারান হারতে চলেছে রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।

কোনও বিজেপি নেতা নয়। বিরোধী বাম-কংগ্রেসের নেতাদের পক্ষ থেকেও কেউ করেনি এই মন্তব্য। নিজের দলের বিরুদ্ধে এমনই চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন মমতার অত্যন্ত কাছের লোক বলে পরিচিত মদন মিত্র।

রাজ্যের প্রাক্তন ক্রিড়া এবং পরিবহনমন্ত্রী জানিয়েছেন যে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বুদ্ধিতার কারণেই ক্ষতি হয়ে চলেছে তৃণমূলের। সেই কারণেই আগামী পুরসভা নির্বাচনে ভরাডুবি ঘটতে চলেছে তৃণমূলের। কিন্তু কেন এমন হবে? সেই বিষয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেছেন মদনবাবু। তাঁর কথায়, “বর্তমানে রাজ্য সরকার এবং তৃণমূল পুলিশ-প্রশাসন দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।”

পুলিশকে ব্যবহার করেই গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যে সন্ত্রাস করে তৃণমূল ভোটে জিতেছিল বলে জানিয়েছেন মদন মিত্র। হারের ভয়েই তৃণমূলনেত্রী এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলেও দাবি করেছেন তিনি। সেই সঙ্গে আরও বলেছেন যে রাজ্যে ক্রমশ হিংসাত্মক ঘটনা বেড়ে চলেছে। আর এই সবকিছুই হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বুদ্ধিতার কারণে।৷

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

আর এই কারণেই পুরসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের ভরাডুবি ঘটতে চলেছে বলে দাবি করেছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন। এই জনপ্রিয় তৃণমূল নেতার কথায়, “পুরসভা ভোটে তৃণমূল গোহারান হারবে। একটাও পুরসভা দখল করতে পারবে না তৃণমূল।”

সম্প্রতি জাতীয় সংবাদ মাধ্যম রিপাবলিক টিভির স্টিং অপারেশনে ফাঁস হয়েছে মদন মিত্রের সেই চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি। মদন মিত্রের এই সকল বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে রিপাবলিক টিভিতে। Kolkata Times 24 সেই ভিডিও-র সত্যতা যাচাই করেনি।

তবে এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন মদন মিত্র। রিপাবলিক টিভির যে সাংবাদিক স্টিং অপারেশন চালিয়েছিল তাঁকে চোর বলে মদন মিত্র বলেছেন, “আমি তৃণমূল কংগ্রেস এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একনিষ্ঠ সৈনিক। তৃণমূলে ছিলাম, আছি এবং থাকব।” বিষয়টি নিয়ে তিনি অত্যন্ত দুঃখিত বলে জানিয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র।

আগামী বছরের এপ্রিল-মে মাস নাগাদ রাজ্যের বহু পুরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কলকাতা পুরসভা সহ রাজ্যের প্রায় ৮০টি পুরসভায় ওই সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে স্বাভাবিক নিয়মে। কিন্তু সেই সঙ্গে আরও প্রায় ২০টি পুরসভায় নির্বাচন করেনি রাজ্য। সেখানে প্রশাসক বসিয়ে পরিচালনা করা হচ্ছে। সেই সকল পুরসভাতেও ভোট হবে আগামী বছরে।