অভিনেতা তাপস পালের মৃত্যুতে শোকার্ত মুখ্যমন্ত্রী

0

কলকাতা: সোমবার মধ্যরাতে প্রয়াত হলেন বাংলা সিনেমা জগতের জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ুর রোগে ভোগার কারণে মুম্বইয়ের এক বেসরকারি হাসপাতালে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকেই ভর্তি ছিলেন তিনি। সেখানেই রাত ৩ টে ৩৫ মিনিট নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়। বয়সজনিত কারণে অবস্থা খুব একটা ভালো ছিল না।

ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল তাঁকে। তাপস পালের মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন ট্যুইট করে লেখেন, “তাপস পালের মৃত্যুর কথা শুনে দুঃখিত ও হতবাক। তিনি বাংলা চলচ্চিত্রের একজন সুপারস্টার ছিলেন, যিনি তৃণমূল পরিবারের সদস্য ছিলেন। তাপস দ্বি-মেয়াদী সাংসদ এবং বিধায়ক হিসাবে জনগণের সেবা করেছিলেন। আমরা তাঁকে খুব মিস করব। তাঁর স্ত্রী নন্দিনী, কন্যা সোহিনী এবং তাঁর অনেক ভক্তের প্রতি আমার সমবেদনা।”

এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী একটি চিঠিতে এদিন লিখেছেন, “বিশিষ্ট অভিনেতা ও প্রাক্তন সাংসদ তাপস পালের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ ভোরে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র ‘দাদার কীর্তি’, ‘সাহেব’, ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’, ‘অনুরাগের ছোঁয়া’, ‘অমর বন্ধন’ ইত্যাদি। তিনি হিন্দি সিনেমায়ও অভিনয় করেছেন। তাপস পাল ২০১৪ সালে কৃষ্ণনগর কেন্দ্রের সাংসদ নির্বাচিত হন।পশ্চিমবঙ্গ সরকার ২০১২ সালে তাঁকে বিশেষ চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করে। এছাড়া তিনি ফিল্ম ফেয়ার ও কলাকার পুরস্কার পান। তাঁর প্রয়াণে অভিনয় ও রাজনৈতিক জগতে অপূরণীয় ক্ষতি হল।”

অভিনয় জীবনের পরে পরবর্তীতে রাজনীতিতে যোগ দেন তাপস পাল। লোকসভা ভোটে তৃণমূল দলের সাংসদ হন তিনি। পরে রোজভ্যালি মামলায় জড়িত হয়ে সিবিআই-এর দ্বারা গ্রেফতার হন তিনি। তাপস পালের মৃত্যুতে শোকের ছায়া গোটা টলিপাড়ায়। একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রী শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছে তাঁর মৃত্যুতে। হরণাথ চক্রবর্তী থেকে চিরঞ্জিৎ চক্রবর্তী, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত সকলেই সমবেদনা জানিয়েছে এই অভিনেতার পরিবারকে।