“রাস্তায় নেমে মোমবাতি জ্বালানোয় অংশ নিন”, ভুল মন্তব্য করে সমালোচনার শিকার হয়ে নতুন বার্তা দিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী

0

মুম্বই: শুক্রবার সকালে ফের জাতির উদ্দেশ্যে বক্তব্য রেখে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “৫ এপ্রিল নতুন সংকল্প নেবে দেশবাসী। এদিন রাত ৯ টায় ৯ মিনিটের জন্য নিজের বাড়িতে ব্যালকনি কিংবা জানলার সামনে আলো বন্ধ করে টর্চ, মোমবাতি, প্রদীপ অথবা মোবাইলের ফ্ল্যাশ লাইট জ্বালিয়ে রাখুন।” মোদীর এই বক্তব্য নিয়েই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তর্জা। বিরোধী দলগুলি মোদীকে তীব্র কটাক্ষ করছেন এ হেন বক্তব্যের জন্য।

মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং বর্তমান বিরোধী দলনেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ রবিবার সন্ধ্যায় লোকজনকে প্রদীপ জ্বালানোর জন্য রাস্তায় নামতে বলে করা তাঁর আবেদন প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়েছেন। তাঁর অফিসিয়াল ট্যুইটার থেকে প্রকাশিত বিবৃতির জন্য তাঁকে নানান সমালোচনার শিকার হতে হয়। শনিবার ফড়নবিশের সোশ্যাল মিডিয়া টিম একটি ভিডিও শেয়ার করেছিল যেখানে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রবিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর কথা মতো ‘মোমবাতি-প্রদীপ জ্বালানোর’ আহ্বান জানিয়ে লোকদের রাস্তায় নামার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

ভিডিওটিতে ফড়নবিশকে বলতে শোনা যায়, “প্রতিটি নাগরিককে প্রদীপ জ্বালানোতে অংশ নেওয়া উচিত এবং তাদের দরজায়, রাস্তায়, ছাদে আসা উচিত।” সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর এই বক্তব্যের তাঁকে তীব্র কটাক্ষ করা হয়। এমনকি কয়েকজন নেটিজেনরা আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে। যার জন্য তিনি একটি নতুন করে ভিডিও বানান। যেখানে তিনি কেবল ছাদে এবং দরজায় বেরিয়েই মোমবাতি-প্রদীপ জ্বালানোর কথা বলেছেন, উল্লেখ করেননি রাস্তার কথা।

মহারাষ্ট্র কংগ্রেস ফড়নবিশকে তীব্র আক্রমণ করেছেন। মহারাষ্ট্র কংগ্রেসের মুখপাত্র সচিন সাওয়ান্ত জানিয়েছেন, “বিরোধী নেতার এই দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাই। আমরা এর আগে দেখেছি যে মোদী জির থালি বাজানোর আহ্বানে কতজন বিজেপি সমর্থক রাস্তায় এসেছিল এবং সামাজিক দূরত্বের নিয়ম ভঙ্গ করেছিল। বিজেপি কি মারকাজকে ২.০ করতে চায়? আমরা বিজেপিকে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।”