সোমেনের উত্তরসূরি খুঁজতে মরিয়া প্রদেশ কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব

0

কলকাতা : বৃহস্পতিবার মারা গিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। এখনও প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতির পদ শূন্য। কিন্তু খুব শীঘ্রই সোমেনের উত্তরসূরি খোঁজার কাজ শুরু করে দিতে চায় কংগ্রেস। কলকাতায় এসে তেমনই ইঙ্গিত দিলেন বাংলার অল ইন্ডিয়া ন্যাশনাল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক গৌরব গগৈ। প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের বক্তব্য খুব বেশিদিন এভাবে চললে সাংগঠনিক সংকট দেখা দিতে পারে। এই পরিস্থিতিতে গৌরবকে পাশে বসিয়ে এই দলের প্রবীণ সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, “সোমেনের ভাবনা অনুযায়ী বামদের সঙ্গে যৌথ আন্দোলনের কর্মসূচি নিয়ে আগামী ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করার কথা ভেবেছিল কংগ্রেস। তার ভাবনাকেই এগিয়ে নিয়ে যাবে দল।”

সোমেন মিত্রের প্রয়াণে রাজ্যজুড়ে সাতদিনের যাবতীয় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। কেন্দ্রীয়ভাবে স্মরণসভার আয়োজন করবে কংগ্রেস। বাম নেতাদের সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। এসবের পাশাপাশি প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের মনোভাব বুঝে নিতে চাইছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এদিন গগৈ বলেন, ”সোমেন মিত্র যে উচ্চতায় পৌঁছেছিলেন, সেখানে পৌছানোর স্বপ্ন গুলো আমাদের পূরণ করতে হবে। আমরা দলের বিভিন্ন নেতার সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি। সকলের মত জানার চেষ্টা করছি।“

বাম-কংগ্রেস জোট সোমেন মিত্রের মস্তিষ্কপ্রসূত ছিল। এই পরিস্থিতিতে জোটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রদীপ ভট্টাচার্যকে আরেকবার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদে বসানো হতে পারে বলে মনে করছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা। আবার পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের যে সংগঠনের সঙ্কট রয়েছে তাতে কোন দাপুটে নেতা কে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির আসনে বসাতে চাইলে শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে অধীর চৌধুরীর বিকল্প কেউ হতে পারে না। কিন্তু একাধারে লোকসভার দলনেতা, পিএসসির চেয়ারম্যান পদে থাকা অধীরকে আবার বিধান ভবনের দায়িত্ব দেওয়া হবে কিনা তা নিয়েও দলের অন্দরে উঠেছে প্রশ্ন। বাকি কংগ্রেস শীর্ষ নেতাদের মধ্যে আব্দুল মান্নান ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার বিরোধী দলনেতার ভূমিকায় রয়েছেন। তাকে বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে বিধানসভার আগে কংগ্রেসের সংগঠন গড়ে তোলার কাজে দলের হাইকমান্ড নিয়োগ করবে কিনা সে প্রশ্নও থাকছে।

এক্ষেত্রে কোনও প্রবীণ নেতা বা নেত্রীকে প্রদেশ কংগ্রেস নেতার ওপর এই দায়িত্ব দেবে নাকি নবীন স্তর থেকে আগামী প্রজন্মের মুখ হিসেবে অন্য কোন নেতাকে তুলে আনবে তা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলের চর্চা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here