বিজেপির বঙ্গ দখলের আগে শোভনের মমতা-প্রীতিতে ক্ষুব্ধ বিজেপি, দলবদল নিয়ে আবারও চরছে পারদ

0

নয়াদিল্লি: ২০২১-এর নির্বাচনে কে ক্ষমতা দখন করবে সেই নিয়ে এখন রাজনইতিক মহলে জোর কদমে চর্চা চলছে। শাসক বিরোধী দুই দলই ক্ষমতা দখলের মরিয়া প্রয়াস চালাচ্ছে। বর্তমানে বাংলার শাসক দল তৃণমূলের ঘর ভাঙতে আপ্রান প্রয়াস চালাচ্ছে বিজেপি। বলা বাহুল্য যে, এক সময়ের তৃণমূলের দাপুটে নেতা মুকুল রায় এখন বিজেপি সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতির পদে। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাধের কাননও খাতায় কলমে বিজেপি নেতা। তবে ২১-এর নির্বাচনের আগে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অবস্থান ভালো ছকে নেয়নি বিজেপি। বিজেপির সদস্য হয়েও শোভনের মমতা-প্রীতি এখন বিজেপির মাথা ব্যথার কারণ।

শোভন চট্টোপাধ্যায় বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন ঠিকই তবে গত এক বছর ধরে তিনি বিজেপিতে সক্রিয় নন। এমনি ফের তৃণমূলে যোগদান নিয়েও বহু বার জল্পনা হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। ২১-এর নির্বাচনের আগে সেই জল্পনার পারদ আরও একবার চড়েছে। এবারের পুজোতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুজোর গিফ্ট পাঠিয়েছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে তাঁর প্রিয় কানননের কাছে গিফ্ট গিয়েছিল মোদীর ভার্চুয়াল সমাবেশের দিন। দিদির পাঠানো উপহার গ্রহন করেছেন তো বটেই উল্টে দিদির জন্য শাড়ি পাঠান শোভন চট্টোপাধ্যায়ও। এই ঘতনাতেই ভিসন ভাবে ক্ষুব্ধ বিজেপি। সেই সঙ্গে আবারও রাজনৈতিক মহলের অন্দরে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা।

বিজেপির আরও রাগের কারণ হল শোভন চট্টোপাধ্যায় বিজেপির সদস্য হলেও মোদীর ভার্চুয়াল সমাবেশের দিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত না থেকে মমতা-প্রীতিতে মজেছিলেন। এমনকি মমতা মোক্ষম চাল দিয়ে মোদীর ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের দিনেই শোভনের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কেও পুজোর উপহার পাঠিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মোদীর বাংলা দখলের লক্ষ্য ছেড়ে দিদির পাঠানো উপহারেই মজেছিলেন শোভন-বৈশাখী। তার উপর গত বছর দিদির এক ডাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ভাইফোঁটা নিতে যান শোভন। সব মিলিয়ে বিধানসভা নির্বাচনের আগে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের তৃণমূলে যোগদান নিয়ে চড়েছে জল্পনার পারদ। তবে মমতার স্নেহের কানন কি করবেন সেটা একমাত্র তিনিই জানেন। তবে বারবার শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অবস্থান নিয়ে নির্বাচনের আগে চাপেই রয়েছে বঙ্গ বিজেপি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here