রাজীব একা নয়, বিজেপিতে যোগদানের পথে তৃণমূলের একাধিক হেভিওয়েট নেতা

0

কলকাতা: ২১-এর নির্বাচনে কার পালে পালে হাওয়া লাছে তা বোঝা এখন সাধারণ মানুষের পক্ষে বোঝা অত্যন্ত কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। ঠিক বিধানসভা নির্বাচনের আগেই হুড়িয়ে চলছে দলবদলের পালা। জল্পনা অনেক দিন ধরেই চলছিল রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে। মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিয়ে সেই জল্পনায় ইতি টেনেছেন রাজীব নিজেই। এই সমস্ত কিছুর মধ্যেই বিজেপি দাবি করছে আগামী ৩০ জানুয়ারি ছেড়ে বিজেপিতে আসবেন বেশ অনেকজন হেভিওয়েট তৃণমূলের নেতা। কারণ সেই দিনই বাংলায় এসে সভা করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

প্রসঙ্গত, গত বছরে শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যাওয়ার পর থেকেই ভাঙন ধরেছে তৃণমূলে। সম্প্রতি মন্ত্রিত্ব ও দল ছেড়েছেন লক্ষ্মীরতন শুক্লা। তার পর আজ আবারও ধাক্কা লাগলো ঘাসফুল শিবিরে। তবে আরও ধাক্কা খাওয়া বাকি আছে বলেই জানাচ্ছে বিজেপি। ৩০ জানুয়ারি ফের বঙ্গ সফরে আসছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সভা করার কথা রয়েছে ঠাকুরনগরে। সেই সভাতেই শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেবেন বহু তৃণমূল নেতারা। বিজেপির হিসাব অনুযায়ী সেই তালিকাতে রয়েছেন, সাধন পান্ডে, জিতেন্দ্র তিওয়ারি, লক্ষ্মীরতন শুক্লা, বৈশালী ডালমিয়া, আবির বিশ্বাস, সিএস জাটুয়া, বিশ্বনাথ পারিয়াল, দিলীপ জাটুয়া, দীপক অধিকারী, প্রতিমা মন্ডল, আফরিন আলী, শংকর সিং, বিধায়ক উদয়ন গুহ, এমনকী উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল। আর আজ সেই তালিকাতে যুক্ত হল রাজীবের নাম। তবে বিজেপির এই দাবি সত্য নয় বলে দাবি করেছে তৃণমূল।

তবে রাজনৈতিক মহলের মতে বিজেপির এই কথা যে সত্য হবে না তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। কারণ শাসক দলের বহু নেতার গলাতেই অন্য সুর শোনা যাচ্ছে। দলের একাংশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন অনেকেই। অন্য দিকে কেন্দ্রীয় নেতারা বঙ্গে আসার পরেই তাঁদের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদানের প্রবণতা দেখা দিয়েছে। সেই ঘটনা যে ঘটবে না তা কিন্তু জোর দিয়ে এই মুহূর্তে একদমই বলা যাবে না।