‘বাঘিনী’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নির্বাচনে পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে প্রার্থী না দেওয়ার ঘোষণা শিবসেনার

0

কলকাতা : রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের ভীত মজবুত হলেও একুশের বঙ্গ নির্বাচনে কোনো প্রার্থী দিচ্ছে না উদ্ধব ঠাকরের শিবসেনা। কিন্তু পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে। কারণ ‘বাংলায় বাঘিনীর মতো লড়ছেন মমতা’। সেই লড়াইকেই কুর্ণিশ জানিয়েছে মহারাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন দল। টুইট করে শিব সেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত জানিয়েছেন, বাংলায় আসন্ন নির্বাচনে তারা কোনো প্রার্থী দিচ্ছে না। সমাজবাদী পার্টি, আরজেডি-র পর বাংলার বিধানসভা ভোটে শিবসেনাও তৃণমূল সরকারকে সমর্থন জানালো। এমনকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাফল্যের কমনাও করেছে শিবসেনা।

উল্লেখ্য ভোটের আগে বিগত কয়েকদিন ধরেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শিবসেনা নিজেদের শক্তি বাড়াচ্ছিল। এমনকি জানুয়ারিতে নির্বাচনে ১০০ টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল মহারাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন উদ্ধব ঠাকরের দল। যা নিয়ে বঙ্গ রাজনীতিতে নয়া সমীকরণ তৈরির ইঙ্গিত মিলছিল। এবার সেই অবস্থান থেকে সরে এসেই তৃণমূলকে পূর্ণ সমর্থন জানালো শিবসেনা। শিবসেনার তরফে মন্তব্য, ‘বাংলায় বাঘিনীর মতো লড়ছেন মমতা। তাঁর সঙ্গে লড়াই অর্থশক্তি, পেশীশক্তির’। যদিও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের এই সিদ্ধান্তের পর শিব সেনার রাজ্য নেতৃ্ত্ব সন্ধেবেলা নিজেদের মধ্যে বৈঠক করবে বলে জানিয়েছে।

প্রসঙ্গত হিন্দুত্ববাদী দল হিসেবেই পরিচিত শিবসেনা। তাৎপর্যপূর্ণভাবেই এ রাজ্যের জঙ্গলমহল অর্থাৎ আদিবাসী অধ্যুষিত ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুরের মতো জায়গায় শিবসেনার শাখা খুলেছিলে। খুঁজছিল লড়াইয়ের জমি। সপ্তাহ কয়েক আগেই ঝাড়গ্রামে বড় জনসভা করে এই বার্তা দিয়েছিলেন রাজ্যের শিব সেনা নেতারা। বিজেপির হিন্দুত্ববাদের সঙ্গে তাঁদের হিন্দুত্বের ধারণার ফারাক তুলে ধরেছিলেন দলের রাজ্য সম্পাদক অশোক সরকার। এমনকি শোনা যাচ্ছিল বিজেপির বহু আদি নেতাও সেই দলে যোগ দিতে পারেন। কারণ রাজ্য বিজেপিতে দলবদলুদের দৌরাত্ম্যে ক্রমশ গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছিল তারা‌। যার ফলে হিন্দু ভোট কাটার চিন্তায় কপালে ভাঁজ পড়ছিল রাজ্য বিজেপির। কিন্তু শিবসেনার এদিনের ঘোষণায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পূর্ণ সমর্থন জানানোয় আরও চাপ বাড়লে গেরুয়া শিবিরের।

বৃহস্পতিবার টুইটে শিব সেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত জানালেন, বঙ্গের ভোটে তাঁরা আলাদা করে লড়বেন না। ‘দিদি’ অর্থাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে থেকেই বিজেপি বিরোধিতায় নিজেদের ভূমিকা পালন করবেন। এরপরই সঞ্জয় রাউত জানান, ”আমরা বিশ্বাস করি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই বাংলার আসল বাঘিনী। তিনি বাঘিনীর মতো লড়াই করেন। তাই তাঁর সাফল্য কামনা করছি।”