নন্দীগ্রামে সম্মুখ সমরে শুভেন্দু-মমতা

0

কাঁথি: নন্দীগ্রামে দিদি বনাম দাদার লড়াইয়ের সাক্ষী হতে চলেছে গোটা বাংলা। তৃণমূলের রণভূমিতে সম্মুখ সমরে শুভেন্দু – মমতা। যা ভোটের উত্তাপকে অনেকটা বাড়িয়ে দিল। এমনিতেই ২৯৪ টা আসনের মধ্যে সবার নজর নন্দীগ্রামেই। কারণ একুশে মুখ্যমন্ত্রীই সেখানে প্রার্থী। সপ্তাহখানেক আগে নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই ঘোষণা করে দিয়েছিলেন যে দলবদলু শুভেন্দুর গড় নন্দীগ্রাম থেকেই তিনি লড়বেন। তাতেই নড়েচড়ে বসেছিল রাজ্য গেরুয়া শিবির। শুভেন্দুকেও তড়িঘড়ি করে মুখ্যমন্ত্রীকে ‘হাফ লাখ’ ভোটে হারানোর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়তে হয়েছিল। কিন্তু আদৌ তিনি লড়বেন কিনা পরে সেই নিয়ে সংশয়ও দেখা দেয়।

অবশেষে নন্দীগ্রাম থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বিপরীতে শুভেন্দুকে দাঁড় করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র নেতৃত্ব। গতকাল অমিত শাহের ফোন পেয়ে দিল্লী উড়ে যান শুভেন্দু। শোনা যাচ্ছে সেখানেই নাকি শুভেন্দু নিজে অমিত শাহের কাছে আবেদন করেন, নন্দীগ্রাম থেকে তাঁকে প্রার্থী করার জন্য। স্বাভাবিকভাবেই নন্দীগ্রাম বিজেপি তথা শুভেন্দুর কাছে হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘প্রেস্টিজ ফাইটে’র জায়গা। এমনিতেও নন্দীগ্রাম হলো তৃণমূলের শক্তিকেন্দ্র। মুখ্যমন্ত্রীর কথায় ‘লাকি’ জায়গা। তাই নন্দীগ্রামের হাওয়া একবার তৃণমূলের দিকে ঘুরে গেলে ঘাসফুল শিবিরকে নির্বাচনে রোখা মুশকিল হয়ে যাবে, যা নিয়ে ওয়াকিবহাল রাজ্য বিজেপি। তাই ঝুঁকি না নিয়ে নন্দীগ্রামের ‘ভূমিপুত্র’ শুভেন্দুকেই মমতার বিপরীত ঠেলে গিয়েছে গেরুয়া শিবির। যার ফলে কঠিন পরীক্ষার মুখে পড়তে হচ্ছে এককালীন নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী শুভেন্দুকে। সূত্রের দাবি শুভেন্দু অধিকারীর শিবিরের জন্যে প্রায় ২৫ টি আসন রাখতে হচ্ছে বিজেপি-কে। এমনিতেই দল ছাড়ার পর নন্দীগ্রাম নিয়ে শুভেন্দুর অভিজ্ঞতা খুব একটা মধুর নয়।

নিজের গড়ে একাধিকবার বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। সভাতেও লোকজনের ভিড় খুব একটা চোখে পড়েনি। যা ভাবাতে পারে শুভেন্দুকে। অন্যদিকে নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর সভা কিংবা অভিষেক ব্যানার্জির সভা তে উপচে পড়েছিল ভিড়। সেই সভায় অভিষেক বনাম শুভেন্দুর বাদানুবাদ চরমে উঠেছিল। এছাড়াও শোনা যাচ্ছে দলবদলুদের তাদের নিজের বিধানসভা থেকেই লড়াতে চাইছে গেরুয়া শিবির। তাই রাজীবকে লড়াতে দেখা যাবে ডোমজুড় কেন্দ্র থেকেই। এছাড়াও দলবদলু হেভিওয়েটদের হাত ধরে অনেক প্রভাবশালী বিজেপিতে নাম লিখিয়েছে। তাদেরকেও টিকিট দেওয়া হতে পারে‌। রাজীব অনুগামীদের জন্যে থাকছে ৫ টি আসন। ডোমজুড় থেকে প্রার্থী করা হচ্ছে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মঙ্গলবারই বিজেপি-তে যোগ দেওয়া জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে প্রার্থী করা হচ্ছে তাঁর বর্তমান কেন্দ্র পাণ্ডবেশ্বর থেকে।